advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে জোনভিত্তিক ছুটি শিল্প অঞ্চলে

নিজস্ব প্রতিবেদক
১২ আগস্ট ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১১ আগস্ট ২০২২ ১১:৪৬ পিএম
advertisement

বিদ্যুৎ সাশ্রয় এবং একই সঙ্গে শিল্পকারখানাগুলোতে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সাম্প্রতিক সময়ে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠকে ঐকমত্যে পৌঁছানোর পর গতকাল শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় থেকে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় থেকে এ প্রজ্ঞাপন প্রকাশ হয়। তাতে বলা হয়, দেশের শিল্পাঞ্চলসমূহে বিদ্যুৎ সরবরাহ নির্বিঘœ করার লক্ষ্যে ভিন্ন ভিন্ন দিনে সাপ্তাহিক ছুটি পুনর্বিন্যাস করার নিমিত্ত পুনরাদেশ না দেওয়া পর্যন্ত ভিন্ন ভিন্ন সাপ্তাহিক বন্ধের দিন নির্ধারণ করেছে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর (ডাইফ)। এই আদেশ এখন থেকে কার্যকর হবে এবং পুনরায় আদেশ না হওয়া পর্যন্ত তা চলবে বলে জানানো হয়েছে। বাংলাদেশ শ্রম আইন, ২০০৬-এর ১১৪ (২) ধারার ক্ষমতাবলে সারাদেশের শিল্প প্রতিষ্ঠানের জন্য (প্রজ্ঞাপনের) ২নং কলামে বর্ণিত বারে জনস্বার্থে সাপ্তাহিক বন্ধের দিন ধার্য করা হলো। পুনরাদেশ না দেওয়া পর্যন্ত জনস্বার্থে সাপ্তাহিক বন্ধের দিন ধার্য করা হয় বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে। এভাবে সাপ্তাহিক ছুটির পুনর্বিন্যাসে দিনে ৪৯০ মেগাওয়াটের মতো বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে আশা করছেন বিদ্যুৎ কর্মকর্তারা। প্রজ্ঞাপনে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি), ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো), ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি), ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপাডিকো), নর্দান ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি (নেসকো), বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (বিআরইবি) কোন এলাকায় কোন দিন শিল্প কারখানায় বিদ্যুৎ বন্ধ থাকবে, সেই বিষয়ে বিস্তারিত উল্লেখ করা হয়েছে। অর্থাৎ প্রতিটি বিতরণ

advertisement 3

কোম্পানি তাদের নিজস্ব বিতরণ এলাকার শিল্পজোনগুলোকে সাত দিন ভাগ করে একেক দিন একেক এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রাখবে।

advertisement 4

advertisement