advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আরেক দফা কাটছাঁট খাদ্য তালিকায়
সাধারণ মানুষের কথা ভেবে কার্যকর পদক্ষেপ নিন

১৫ আগস্ট ২০২২ ১২:০০ এএম
আপডেট: ১৫ আগস্ট ২০২২ ১২:৩৫ এএম
advertisement

দেশে নিত্যপণ্যের বাজার নিয়ে অস্থিরতা কোনোভাবেই কাটছে না। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু থেকেই একের পর এক পেঁয়াজ, চাল, তেল, ডিম, সবজি, কাঁচামরিচসহ প্রায় সব নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দামই বেড়েছে। ফলে সাধারণ মানুষ তাদের খাদ্য তালিকায় পরিবর্তন আনতে বাধ্য হচ্ছে। বিশেষ করে করোনার ধাক্কা সামলাতে না সামলাতেই মূল্যস্ফীতির চাপে পড়েছে মানুষ। এরই মধ্যে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ অস্থির করে তুলেছে আন্তর্জাতিক পণ্যবাজার। যুদ্ধের বড় প্রভাব পড়েছে জ্বালানি তেলের বাজারে, যার আঁচ লেগেছে দেশেও। দেশে জ্বালানি তেলের দাম এক ধাক্কায় অনেক বাড়ানো হয়েছে। ফলে নিত্যপণ্যের দামসহ জীবনযাত্রার বিভিন্ন পর্যায়ে মানুষের খরচের চাপ শুধু বাড়ছেই। এতে দিশাহারা মানুষ টিকে থাকতে জীবনযাপনে পরিবর্তন আনতে বাধ্য হচ্ছেন। করোনাকালে দেশে তিন কোটির বেশি মানুষ নতুন করে দরিদ্র হয়ে পড়েছিল। করোনার প্রকোপ কমায় এ সংখ্যা কমে যায়। তবে সাম্প্রতিক সময়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বেড়ে যাওয়ায় দেশে ২১ লাখ মানুষ নতুন করে দরিদ্র হয়ে পড়েছে। এই পরিবারগুলো টিকে থাকতে মৌলিক চাহিদায়ও কাটছাঁট করতে বাধ্য হচ্ছে। এবার অতিমূল্যস্ফীতির চাপে খাদ্য তালিকায় আরেক দফা কাঁচি চালাতে বাধ্য হচ্ছে তারা। টিকে থাকার লড়াইয়ে মানুষকে এভাবেই জীবনযাত্রার গতিপ্রবাহ ঠিক করতে হচ্ছে।

advertisement

বলার অপেক্ষা রাখে না, আমাদের দেশে সব বোঝা আর দুর্ভোগের জন্য জনগণ। বহু দেশে করোনাকালে মানুষের আয় সমর্থনসহ নানা ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। সরকারের আওতায় থাকা জিনিসপত্রের দাম কমিয়েছে। আমাদের দেশে হতদরিদ্রদের জন্য সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচি থাকলেও মধ্যবিত্তদের জন্য কোনো ব্যবস্থাই রাখা হয়নি। ফলে একশ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী মানুষের দুর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে অযৌক্তিক, অন্যায্যভাবে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে পণ্যমূল্য বর্ধিত করে বিক্রি করে। তাই অসাধু ব্যবসায়ীদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনতে হবে এবং মজুদদারদের কঠোরভাবে মোকাবিলা করতে হবে। পরিকল্পনা থেকে শুরু করে পণ্য সরবরাহের প্রতিটি পর্যায় হতে হবে নির্বিঘœ।

advertisement 4

সরকারকে মনে রাখতে হবে, চালের দাম বাড়লে অন্যান্য পণ্যের দামও বেড়ে যায়। তাই সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয় আরও বেড়ে যাওয়ার আগেই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিন।

advertisement