advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণকাণ্ডে যুবক কারাগারে

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:০৭ এএম
প্রতীকী ছবি
advertisement

আদমদীঘিতে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী কিশোরী (১২) ধর্ষণের অভিযোগে নয়ন চন্দ্র দাস (৩৫) নামে এক লম্পটকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয়রা। নয়নচন্দ্র দাস উপজেলার তালশন পালপাড়ার অনিল চন্দ্র দাসের ছেলে। ওই গ্রামের জনৈক আচ্চু শেখের পরিত্যক্ত চাতালের ম্যানেজার রুমের দক্ষিণ পাশে গলির ভেতরে ঘটনাটি ঘটে। গতকাল দুপুরে গ্রেপ্তারকৃতকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী কিশোরীর বাবা পরিবার নিয়ে গত ১০ বছর ধরে তালশন গ্রামে পরিত্যক্ত ওই চাতালের ম্যানেজারের রুমে বসবাস করছিলেন। গত ৬ মাস আগে সেখান থেকে একই গ্রামে তার শ্বশুরের বাড়িতে বসবাস শুরু করেন। তিনি গত বুধবার সকাল ৮টায় বাড়ি থেকে বেরিয়ে অন্যের ধানের জমিতে স্প্রে করতে যান। এরপর দুপুর সাড়ে ১২টায় বাড়িতে ফিরে মেয়েকে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। এ সময় পরিত্যক্ত ওই চাতালে গিয়ে দেখতে পান নয়ন কৌশলে চাতালের পরিত্যক্ত ঘরের বারান্দায় নিয়ে তার মেয়েকে ধর্ষণ করছে। ধর্ষক নয়নকে আটকের চেষ্টা করলে সে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়রা তাকে আটক করে। পরে পুলিশে খবর দিলে ঘটনাস্থল থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। ওই দিন রাতেই বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় পরের দিন গ্রেপ্তারকৃতকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

advertisement 3

আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল করিম রেজা জানান, গতকাল সকালে ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এবং সেই সঙ্গে গ্রেপ্তারকৃত নয়ন দাসকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

advertisement 4
advertisement