advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নির্বাচনী প্রচারে অংশগ্রহণ
সাঘাটায় বিএনপির চার নেতাকে শোকজ

সাঘাটা (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:১৫ এএম
advertisement

দলের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচনে দুই প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেওয়ায় সাঘাটা উপজেলার দুই ইউনিয়ন বিএনপির চার নেতাকে শোকজ করা হয়েছে। দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে গতকাল শুক্রবার কারণ দর্শানোর এ নোটিশ তাদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়।

advertisement 3

উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মোহাম্মদ আলী ও সদস্য সচিব সেলিম আহম্মেদ তুলিপ স্বাক্ষরিত চিঠিতে অভিযুক্তদের দুই দিনের মধ্যে সশরীরে দলীয় কার্যালয়ে এসে জবাব

advertisement 4

দিতে বলা হয়েছে। এতে ব্যর্থ হলে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

উপজেলা বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক কোনো নির্বাচনেই বিএনপি অংশ নেবে না। সে মোতাবেক ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়ার মৃত্যুতে শূন্য হওয়া গাইবান্ধা-৫ (সাঘাটা-ফুলছড়ি) আসনে আগামী ১২ অক্টোবরের উপনির্বাচনেও বিএনপি অংশ নিচ্ছে না। কিন্তু দলের এ সিদ্ধান্ত অমান্য করে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেন কচুয়া ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য ও ইউপি চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী খন্দকার ও কামালেরপাড়া ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফুর রহমান আরিফ। এ ছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচারে অংশ নেন পদুমশহর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ইউপি মেম্বার শাহিনুর ইসলাম ও দৌলা মিয়া।

প্রায় এক সপ্তাহকাল ধরে এ ঘটনায় উপজেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ দানা বাঁধতে থাকে। নেতাকর্মী ও সমর্থকরা অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের ক্ষোভ প্রকাশ করেন। গত রোববার কেন্দ্রীয় কর্মসূচি অনুযায়ী বিক্ষোভ সমাবেশের পর দলীয় কার্যালয়ে আলোচনাসভায় তৃণমমূল নেতাকর্মীরা অভিযুক্তদের দল থেকে বহিষ্কারের দাবি জানান।

উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মোহাম্মদ আলী বলেন, দলের সঙ্গে যারা বেঈমানী করবে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না। একই ব্যক্তি একসঙ্গে দুই দলের কাজ করতে পারে না।

উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব সেলিম আহম্মেদ তুলিপ বলেন, দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে তাদের বিরুদ্ধে গঠনতন্ত্র মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

advertisement