advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মা আত্মগোপনই করেছিলেন: মরিয়ম

নিজস্ব প্রতিবেদক
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৮:৫৪ এএম | আপডেট: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৮:৫৪ এএম
রহিমা বেগম ও তার মেয়ে মরিয়ম মান্নান। ছবি: সংগৃহীত
advertisement

নানা ঘটনার পর এখন মরিয়ম মান্নান তার মায়ের আত্মগোপনের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘মায়ের সঙ্গে কথা বলে মনে হয়েছে, মা জীবনের প্রতি বিরক্ত, নিজেই আত্মগোপনে ছিলেন। আদালতে দেওয়া তার মায়ের জবানবন্দি পরিবর্তন করাবেন।

খুলনায় বাড়ি থেকে রহিমা বেগমকে অপহরণ করা হয়েছিল বলে দাবি করেছিলেন মরিয়ম মান্নান। আদালত ও পুলিশের কাছে রহিমা বেগম ‘অপহৃত হয়েছিলেন’ বলে বক্তব্য দিয়েছেন।

advertisement

খুলনার মহেশ্বরপাশার বণিকপাড়ার বাড়ি থেকে গত ২৭ অগাস্ট নিখোঁজ হন ৫৫ বছর বয়সী রহিমা বেগম। এরপর থেকে তার সন্ধান করছিলেন তার মেয়ে মরিয়ম মান্নানসহ চার বোন। এ নিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।  প্রথমে ফুলবাড়িয়ায় একটি লাশ দেখে তা নিজের মায়ের বলে দাবি করেন মরিয়ম। অন্যদিকে প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে অপহরণের মামলা করেন মরিয়মের বোন। এর মধ্যেই ২৯ দিন পর ফরিদপুরের একটি বাড়ি থেকে রহিমাকে উদ্ধার করে পুলিশ।

advertisement 4

আর মামলার তদন্তকারী পিবিআইয়ের কর্মকর্তারা বলে আসছেন, রহিমা নিরুদ্দেশ থাকাকালে বান্দরবান ও ফরিদপুরে ছিলেন এবং তিনি আত্মগোপনে ছিলেন বলেই তারা মনে করেন।

এরমধ্যেই মাকে নিয়ে ঢাকায় চলে আসা মরিয়ম বৃহস্পতিবার বলেন, ‘তার মায়ের বান্দরবান ও ফরিদপুরে যাওয়ার তথ্য পেয়েও তখন তা ‘অবিশ্বাস’ করেছিলেন তিনি। তবে এখন তিনি নিশ্চিত, তার মা রহিমা বেগম অপহৃত হননি, তিনি আত্মগোপনেই ছিলেন। আমরা যদি জানতাম মা আত্মগোপনে, তাহলে তাকে খুঁজতে এত জায়গায় যেতাম না।’

উদ্ধারের পর দেওয়া মায়ের জবানবন্দি পরিবর্তনের জন্য আদালতে আবেদন করা হবে বলে জানান মরিয়ম।

advertisement