advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সৃজিতকে ছাড়া বাড়িটা খুব ফাঁকা ফাঁকা লাগে

বিনোদন প্রতিবেদক
২২ নভেম্বর ২০২২ ০৩:৫৬ পিএম | আপডেট: ২২ নভেম্বর ২০২২ ০৪:০০ পিএম
সৃজিত ও মিথিলা
advertisement

কলকাতার জনপ্রিয় নির্মাতা সৃজিত মুখার্জি আর বাংলাদেশের অভিনেত্রী রফিয়াত রশিদ মিথিলার সংসারজীবন ভালো যাচ্ছে না- এমন গুঞ্জন এখন শোবিজ পাড়ায়। যদিও ইতিমধ্যেই বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছেন মিথিলা। জানিয়েছেন, তারা ভালো ও সুখেই আছেন। তবুও যেন গুঞ্জন থামছে না। আলোচনা চলছে নেটদুনিয়ায়। এবার বিষয়টি নিয়ে স্পষ্ট কথা বললেন মিথিলা।

ভারতের জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারে প্রকাশিত এক সংবাদে মিথিলা বলেন, ‘এই শেষ কয়েক দিন অফিসের কাজে চূড়ান্ত ধকল গিয়েছে। আচমকাই দেখলাম অনেকে মেসেজ করছে। আরে ওটা আমার এমনি একটা ফটোশুটের ছবি, তাতে মনে হল এই লেখাটা ভাল যাবে। আর তাছাড়া সৃজিত যে বব ডিলানের গানটি দিয়েছিল, ওটা আমার আর সৃজিত দু’জনেরই প্রিয় গান।’

advertisement

মিথিলা আরও বলেন, ‘এই বছরটা আমার আর ওর বাইরেই কেটে গেল। যখন আমি কলকাতা আসি, সৃজিতকে ছাড়া বাড়িটা খুব ফাঁকা ফাঁকা লাগে। সুতরাং এসব কথায় কান দেওয়ার আমার কোনো সময়ই নেই।’

advertisement 4

এই মুহূর্তে অফিসের কাজে ব্যস্ত আছেন এই অভিনেত্রী। সঙ্গে আছে অভিনয়ের ব্যস্ততাও। কলকাতায়ও মুক্তির অপেক্ষায় তার আছে তার ‘মায়া’ সিনেমাটি।

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে সৃজিত তার ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করেন। যেখানে দেখা যায়, সমুদ্রের পাড়ে একা দাঁড়িয়ে আছেন তিনি। আর ক্যাপশনে একটি গানের কয়েকটি লাইন যোগ করেছেন। গানের কথাগুলোর অর্থ : ‘এখানে রাগের দরকার নেই, এখানে দোষারোপের প্রয়োজন নেই। এখানে কিছু প্রমাণ করার নেই। সব কিছু একই রয়েছে, সৈকতে শুধুমাত্র একটা গাছ দাঁড়িয়ে রয়েছে...একা। বিদায় অ্যাঞ্জেলিনা। এবার বিদায় নিতে হবে।’

প্রায় একই সময়ে নিজের কিছু ছবি পোস্ট করেন মিথিলাও। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘কীভাবে তুমি জানো যে সেই প্রেম সত্যি? কীভাবে জানো সেই প্রেম ন্যায্য? সেই প্রেম আর নেই এটার জানার আগে সেই উত্তর খুঁজতে কতদূর তুমি যেতে পারো?’ তাদের এমন পোস্ট ঘিরেই শুরু হয় বিচ্ছেদের গুঞ্জন।

২০১৯ সালে ওপার বাংলার নির্মাতা সৃজিত মুখার্জির সঙ্গে সংসার জীবন শুরু করেন মিথিলা। মেয়ে আইরাকে নিয়ে ভারত ও বাংলাদেশ, দুই দেশেই থাকেন মিথিলা। মেয়ে আইরাকে নিয়ে প্রায়শই আবেগঘন পোস্ট করতে দেখা যায় সৃজিতকে। কয়েকমাস আগে মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে একসঙ্গে ঘুরতেও গিয়েছিলেন তারা।

advertisement