advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

হতাশ হওয়ার কিছু নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৩ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ নভেম্বর ২০১৯ ০০:২৪
advertisement

গণতন্ত্রের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার নেলসেন ম্যান্ডেলা ও মিয়ানমারের অং সান সু চির ত্যাগের সঙ্গে কারাবন্দি খালেদা জিয়ার তুলনা করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেছেন, দীর্ঘ ১০-১২ বছর ধরে আমরা এ অবস্থার মধ্যে আছি। হতাশ হওয়ার কিছু নেই। গতকাল শুক্রবার সুপ্রিমকোর্ট বার অডিটোরিয়ামে

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের উদ্যোগে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৫তম জন্মদিনে আলোচনাসভায় তিনি এ কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, দীর্ঘ ১০-১২ বছর ধরে আমরা চলমান অবস্থার মধ্যে আছি। হতাশ হওয়ার কিছু নেই। নেলসন ম্যান্ডেলা ২৭ বছর জেলে ছিলেন। পাশের দেশ আমাদের সঙ্গে সম্পর্ক খুব খারাপ মিয়ানমারের। তার নেত্রী সু চি প্রায় ২২ বছর গৃহবন্দি ছিলেন। শেষ পর্যন্ত গণতন্ত্রের জয় হয়েছে, গণতন্ত্র মুক্তি পেয়েছে। তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়া আজকে কারাগারে। নিজের জন্য নয়, কারাগারে তিনি আমাদের জন্য, এ দেশের গণতন্ত্রকে রক্ষার জন্য। একই ধরনের মামলায় কয়েকজন মন্ত্রী-এমপি জামিনে আছেন, দেশনেত্রীকে জামিন দেওয়া হয় না। আইনগতভাবে যেটা তার পাপ্য সেটা তাকে দিচ্ছে না। কারণ দেশনেত্রী যদি বাইরে থাকেন মেগা প্রজেক্ট থেকে মেগা লুট করছেন, মানুষের অধিকারগুলোকে ছিনিয়ে নিচ্ছেন, নিজেদের ইচ্ছামতো ভোট করছেন সেটা ক্ষমতাসীনরা পারবেন না।

স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েলের পরিচালনায় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন, শওকত মাহমুদ, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, অঙ্গ সংগঠনের নুরুল ইসলাম নয়ন, এসএম জিলানী, ফখরুল ইসলাম রবিন, গাজী রেজওয়ান হোসেন রিয়াদ, নজরুল ইসলাম, রফিক হাওলাদার প্রমুখ।

লন্ডনে অবস্থানরত দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের প্রসঙ্গ টেনে মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে যখন আমাদের অনেকের মধ্যে হতাশা কাজ করছে, একটা ভয়ভীতি-ত্রাস আসছে তখন তিনি (তারেক রহমান) কিন্তু সেই সুদূর থেকে সেই লালমনিরহাটের একটি গ্রামের নেতাকে ফোন করে বলছেন, ‘সাহস হারাবেন না, আমরা সবাই আছি।’ উনি শুধু নেতাদের সঙ্গেই কথা বলছেন না, তৃণমূলের সঙ্গেও কথা বলছেনÑ এভাবে তিনি উজ্জীবিত করছেন গোটা জাতিকে। সে জন্য বললাম, আমাদের এত অন্ধকার-হাতশা-নিরাশার মধ্যেও আমরা সেই আশার আলো দেখতে পাই তারেক রহমানের নেতৃত্বের মধ্যে। এ নেতৃত্ব আমাদের মুক্তির পথ এনে দেবে।

ভেদাভেদ ভুলে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা গোটা বাংলাদেশের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করার কাজ করছি, দলমত নির্বিশেষ সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে এমন এক গণআন্দোলন সৃষ্টি করব, গণআন্দোলনের মধ্য দিয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া মুক্ত হবেন, গণতন্ত্র মুক্তি পাবে। এটা আমাদের বিশ্বাস। আমরা জানি এটা হবেই।’

সেলিম আল দ্বীনের লেখা নাটক মুনতাসীর ফ্যান্টাসীর প্রসঙ্গ টেনে বলেন, এরা (সরকার) তো সব খাওয়া শুরু করেছে। এরা (ক্ষমতাসীন) মুনতাসীর ফ্যান্টাসীর মধ্যে পড়েছে। এখন সব কিছু খেয়ে ফেলছে, এরা ক্যাসিনো খেলো, বড় বড় মেগা প্রজেক্টের সব খেয়ে ফেলছে। এখন সাধারণ মানুষের পেঁয়াজ আর লবণ নিয়ে টানাটানি শুরু করেছে। এ সরকারের একটাই মাত্র উদ্দেশ্যÑ যে কোনো ধরনের ক্ষমতায় থেকে শুধু লুটপাট করা, নিজেরা বিত্তশালী হওয়া এবং সেই বিত্তকে, সেই অর্থ-সম্পদকে বিদেশে পাচার করে দেওয়া তাদের সন্তানদের, তাদের পরিবারকে নিরাপদ রেখে দেওয়া। দেশের মানুষের কথা চিন্তা করার তাদের কোনো অবকাশ নেই।

advertisement