advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

আসছে ‘রূপসা নদীর বাঁকে’

বিনোদন প্রতিবেদক
২৯ ডিসেম্বর ২০১৯ ১১:৫৯ এএম | আপডেট: ২৯ ডিসেম্বর ২০১৯ ১১:৫৯ এএম
‘রূপসা নদীর বাঁকে’ চলচ্চিত্রের একটি দৃশ্য। ফাইল ছবি
advertisement

বাংলাদেশের বামপন্থী ত্যাগী নেতাদের জীবন ও কর্ম নিয়ে তানভীর মোকাম্মেল নির্মাণ করছেন চলচ্চিত্র ‘রূপসা নদীর বাঁকে’। সরকারি অনুদান ও গণঅর্থায়নে নির্মিত এই চলচ্চিত্রের দৃশ্যধারণের কাজ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। সব ঠিক থাকলে আগামী বছর মার্চে মুক্তি পাবে ‘রূপসা নদীর বাঁকে’। এমনটাই জানালেন এর নির্মাতা।

তানভীর মোকাম্মেল বলেন, ‘২০১৮ সালে ফেব্রুয়ারিতে এই সিনেমার শুটিং শুরু হয়। সম্প্রতি আমরা ঢাকা জেলখানায় দৃশ্যধারণের মধ্য দিয়ে এর শুটিং শেষ করেছি। আগামী ৩১ ডিসেম্বর সাউন্ডের কাজে ভারত যাব। মাস দুয়েকের মধ্যে সব কিছু গুছিয়ে আগামী মার্চেই সিনেমাটি মুক্তির পরিকল্পনা করছি।’

গল্প প্রসঙ্গে এই নির্মাতা জানান, খুলনা জেলার রূপসা নদীর পাড়ে কর্ণপাড়া গ্রামে জন্ম মানবরতন মুখোপাধ্যায়ের। শৈশবে পিতৃহীন তরুণ মানব বৃটিশ আমলে ‘অনুশীলন’ সমিতি ও পরে বামপন্থী আন্দোলনে যোগ দেন। কৃষক আন্দোলনে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখার কারণে এলাকার সবার কাছে সে ক্রমে ‘কমরেড মানবদা’ নামে পরিচিত ও সম্মানিত হয়ে ওঠে।

১৯৪৭’র দেশভাগের পর মানব মুখোপাধ্যায়ের আত্মীয়-স্বজন ও সঙ্গীরা সবাই ভারতে চলে যায়। কিন্তু মানব মুখোপাধ্যায় রয়ে যান হিন্দু-মুসলমান দরিদ্র কৃষকদের মাঝে। পাকিস্তানি আমলের শত প্রতিকূলতার মাঝেও তিনি সমাজ প্রগতির পক্ষে কাজ করে যান। ১৯৭১ সালে রাজাকাররা তাকে হত্যা করে। ভাগ্যতাড়িত এক বামপন্থী নেতা এবং ওই সময় ও যুগকে নিয়েই চলচ্চিত্রের গল্প গড়ে উঠেছে, বলেন তানভীর মোকাম্মেল।  

‘রূপসা নদীর বাঁকে’র চিত্রগ্রহণে ছিলেন ১০বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রয়াত চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান। আর এতে অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসান শোভন, খায়রুল আলম সবুজ ও তওসিফ সাদমান তূর্য।

পুলিশ সুপারের চরিত্রে অভিনয় করেছেন ব্রিটিশ অভিনেতা অ্যান্ড্রু জোনস। আরও আছেন নাজিবা বাশার, রামেন্দু মজুমদার, আতাউর রহমান, চিত্রলেখা গুহ, কেরামত মওলা, ঝুনা চৌধুরী, আফজাল কবির, মাসুম বাশার, বৈশাখী ঘোষ, ইকবাল আহমেদ প্রমুখ।

advertisement