advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

২৪ মে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার সিদ্ধান্ত বহাল

নিজস্ব প্রতিবেদক
৬ মে ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ৫ মে ২০২১ ২২:২৫
advertisement

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য পরিষদ আগামী ১৭ মে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল খোলা এবং ২৪ মে থেকে ক্লাস শুরুর সিদ্ধান্ত বহাল রেখেছে। গতকাল বুধবার পরিষদের ভার্চুয়াল এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত বহাল রাখা হয়। করোনা ভাইরাস মহামারীর কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। কয়েক দফা ছুটি বাড়ানোর পর আগামী ২৪ মে থেকে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার কথা রয়েছে। ছুটি আরও বাড়বে কিনা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে উপাচার্য পরিষদ ওই বৈঠক করেছে।

বৈঠকে উপস্থিত পরিষদের সদস্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নূর জানান,

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বর্তমান অবস্থা বিবেচনা করে আগামী ১৭ মে হল ও ২৪ মে বিশ্ববিদ্যালয় খোলা সম্ভব কিনা তা পর্যবেক্ষণে উপাচার্যদের বৈঠক হয়েছে। যেহেতু করোনার জন্য সরকার দেশে বিধিনিষেধ চলমান রেখেছে এবং আগামী ১৬ মে পর্যন্ত সেটি বাড়ানো হয়েছে, সে কারণে আগের সিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে। বিধিনিষেধ শেষ হলে উপাচার্যরা আবারও সভা করে পরিস্থিতি বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নেবেন। এ ক্ষেত্রে সরকারের পক্ষ থেকে যে সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হবে, সেটিকে গুরুত্ব দিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, ‘সরকারের পূর্বের সিদ্ধান্ত সামনে রেখে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল ও ক্যাম্পাস পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কাজ অব্যাহত রাখা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে এ সময়ের মধ্যে যদি বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়া হয়, তবে ক্যাম্পাস ও ক্লাসগুলো পাঠদান উপযোগী করে তোলা হচ্ছে। এ ছাড়া করোনা পরিস্থিতি, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা, শিক্ষক-কর্মকর্তা নিয়োগ, বর্তমান টিকা কার্যক্রমসহ করোনাকালীন শিক্ষা কার্যক্রম নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।

জানা গেছে, বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়া যায় কিনা তা নিয়েও আলোচনা চলছে। বিশ্ববিদ্যালয় খোলা এবং অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে অন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক আজ বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে গত ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছিলেন, দেশের সরকারি বা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে সরাসরি ক্লাস ঈদুল ফিতরের পর আগামী ২৪ মে থেকে শুরু হবে। তার এক সপ্তাহ আগে ১৭ মে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আবাসিক হল খুলে দেওয়া হবে। হল খোলার আগেই টিকার ব্যবস্থা করা হবে আবাসিক শিক্ষার্থী, আবাসিক হলের শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য।

advertisement