advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

চট্টগ্রামে ঈদের আগেই শেষ হচ্ছে টিকার মজুদ

চট্টগ্রাম ব্যুরো
৬ মে ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ৫ মে ২০২১ ২৩:০৭
advertisement

চট্টগ্রাম জেলায় এখন করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ডোজ টিকা মজুদ আছে ৭০ হাজারের মতো। এগুলো দিয়ে ঈদ পর্যন্ত চালানো গেলেও এর পরে লাগবে নতুন ডোজ। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) নিদের্শনা আছে প্রথম ডোজ টিকা নেওয়ার ১২ সপ্তাহ পর দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া উচিত। কিন্তু আমাদের দেশে দ্বিতীয় ডোজ তার আগেই দেওয়া হয়েছে। তাই করোনার দ্বিতীয় ডোজ নিতে একটু দেরি হলেও সমস্যা হবে না।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ে তথ্য অনুযায়ী, চট্টগ্রাম জেলা (মহানগরসহ) প্রথম দফায় ৪৮ হাজার ৯০০ ভায়াল এবং দ্বিতীয় দফায় ৩০ হাজার ৬৫০ ভায়ালসহ মোট ৭৯ হাজার ৫৫০ ভায়াল টিকা পেয়েছে। প্রতি ভায়ালে ১০ ডোজ হিসেবে প্রাপ্ত টিকার মোট ডোজ সংখ্যা দাঁড়ায় ৭ লাখ ৯৫ হাজার ৫০০। এর মধ্যে মহানগরসহ পুরো জেলায় প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ মিলিয়ে ইতিমধ্যে সাড়ে ৭ লাখ ডোজ টিকাদান সম্পন্ন হয়েছে। সে হিসেবে এখন আর ৭০ হাজার ডোজ টিকা মজুদ আছে। এখন প্রতিদিন জেলায় গড়ে ৮ হাজারের ওপরে টিকা দেওয়া হচ্ছে। ফলে মজুদ টিকা আট কর্মদিবসের মধ্যেই হয়তো শেষ হচ্ছে। তারপরও মজুদ টিকায় ঈদের আগ পর্যন্ত চালিয়ে নেওয়ার আশা করছেন কর্মকর্তারা।

জানা গেছে, চট্টগ্রামের ১৪ উপজেলায় মোট ৩৬ হাজার ৩০৯ ভায়াল বা ৩ লাখ ৬৩ হাজার ৯০ ডোজ টিকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল বুধবার পর্যন্ত টিকাদান সম্পন্ন হয়েছে ১ম ও ২য়সহ মোট ৩ লাখ ৪০ হাজার ডোজ। উপজেলাগুলোতে ১ম ডোজ টিকা গ্রহীতার সংখ্যা ২ লাখ ৫০৭ জন। আর প্রথম ডোজ গ্রহীতাদের মধ্যে গতকাল পর্যন্ত দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ১ লাখ ৩৬ হাজার। তারপরও মজুদ ফুরিয়ে আসার খবরে প্রথম ডোজ নেওয়া এক লাখের বেশি টিকা গ্রহীতার মধ্যে দ্বিতীয় ডোজ পাওয়া নিয়ে শঙ্কা ভর করেছে।

সম্ভাব্য এ সংকটের কথা স্বীকারও করেছেন স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা। সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি বলেন, সরকার বিভিন্ন দেশ থেকে টিকা সংগ্রহে জোর তৎপরতা চালাচ্ছে। এখন যেসব টিকা মজুদ আছে সেগুলো দিয়ে ঈদ পর্যন্ত চালানো সম্ভব হবে। বাকি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুসারে।

প্রথম ডোজ টিকা নেওয়ার পর দ্বিতীয় ডোজ না দিলে সমস্যা হবে কিনা জানতে চাইলে সিভিল সার্জন বলেন, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইনে প্রথম ডোজ নেওয়ার অনন্ত ১২ সপ্তাহ পর দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণের নির্দেশনা রয়েছে। এরপরও আমরা মানুষকে সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে দুই মাসের মধ্যে দ্বিতীয় ডোজ টিকা দিয়েছি। এতে টিকা দেরিতে নিলেও স্বাস্থ্যগত সমস্যা হবে না।’

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী বলেন, সামনে শুক্রবারসহ সরকারি ছুটির দিন রয়েছে। এই দিনগুলোতে টিকাদান বন্ধ থাকে। তাই মজুদ টিকায় ঈদের আগ পর্যন্ত চালিয়ে নেওয়া যাবে। এরপর নতুন করে টিকা পাওয়া গেলে নির্দেশনা অনুসারে বাকিদের টিকা দেওয়া হবে।

advertisement