advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

মহেশখালীতে পিতার হাতে পুত্র খুন

মহেশখালী (কক্সবাজার) প্রতিনিধি
১২ মে ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ১১ মে ২০২১ ২২:০৯
advertisement

মহেশখালীতে পারিবারিক কলহের জের ধরে পিতার নেতৃত্বে ঘরে ঢুকে ছেলেকে হত্যা এবং স্ত্রী-কন্যাসহ ৪ জনকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার রাত সাড়ে ১২টায় উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়নের বারৈয়াছড়া গ্রামে। নিহতের নাম মো. জোবায়ের। এ ঘটনায় নিহতের পিতা আলতাফ উদ্দিন ও সৎ ভাই টিপুকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। নিহতের মামা শহীদ হোসেন ও মৌলভী বশির আহমদ জানান, তাদের বোন জান্নাত আরা

বেগম আলতাফ হোসেনের প্রথম স্ত্রী। এ ছাড়া আরও তিনটি বিয়ে করেন আলতাফ। প্রথম সংসারের স্ত্রী ও ছেলেমেয়েদের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বাড়ির ভিটার জমি নিয়ে পারিবারিক কলহ চলছিল। বিষয়টি নিয়ে ইতিপূর্বে অনেকবার সালিশ-বিচার হয়েছে। এর জেরে থানায় পিতা-পুত্রের পরস্পরবিরোধী অভিযোগে মামলা রয়েছে। এর জের ধরেই সোমবার রাত সাড়ে ১২টায় আলতাফ হোসেনের নেতৃত্বে তার ভাই ও অপর স্ত্রীর সন্তানসহ অন্তত ১০ জন জান্নাত আরার ঘরে সশস্ত্র হামলা চালায়। এতে গুরুতর আহত হন জোবায়ের, তার মা জান্নাত আরা বেগম, ভাই মো. ফয়সাল, বোন জুনু বেগম ও ভাগনি শামিমা আক্তার (১৬)। চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক জুবায়েরকে মৃত ঘোষণা করে। আহত অপর ৪ জনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়।

মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হাই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পারিবারিক কলহের জেরে পিতার নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক অভিযোগে জানা যায়। গতকাল ভোরে অভিযান চালিয়ে উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়নের মৌলভীকাটা এলাকায় এক বাড়িতে আত্মগোপনে থাকা অবস্থায় আলতাফ হোসেন ও তার দ্বিতীয় স্ত্রীর ছেলে টিপুকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মহেশখালী (কক্সবাজার) : উপকূলীয় দ্বীপ মহেশখালী পৌরসভার চরপাড়া সি বিচ সংলগ্ন প্যারাবন থেকে গত সোমবার অজ্ঞাতনামা এক যুবকের লাশ উদ্ধার করে মহেশখালী থানা পুলিশ। লাশের পাশে পাওয়া মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে অনুসন্ধান চালিয়ে রাতে পুলিশ তার পরিচয় শনাক্ত করেছে। তার নাম মো. শরিফুল ইসলাম। তিনি কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ধামতী গ্রামের মফিজুল ইসলামের ছেলে। মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হাই এর সত্যতা নিশ্চিত করেন।

advertisement