advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

অবৈধ সম্পদ অর্জন
এনু-রূপনসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

নিজস্ব প্রতিবেদক
১১ জুন ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ১০ জুন ২০২১ ২৩:০০
advertisement

প্রায় ৮৯ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় ঢাকায় আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেতা এনামুল হক এনু ও তার ভাই রূপন ভূঁইয়াসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে দুই মামলার চার্জশিট দাখিলের অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল বৃহস্পতিবার কমিশনের সভায় চার্জশিটের অনুমোদন দেওয়া হয় বলে নিশ্চিত করেন দুদক সচিব মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার।

সচিব সাংবাদিকদের বলেন, এক মামলার তদন্তে আসামি এনামুল হক এনুর বিরুদ্ধে ক্যাসিনো ব্যবসাসহ বিভিন্ন অবৈধ ব্যবসা ও অনৈতিক কার্যক্রমের মাধ্যমে ৪৭ কোটি ৩৬ লাখ ৯১ হাজার ৬৭৮ কোটি টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ ছাড়া এনুর দুই সহযোগী হারুনুর রশীদ ও আবুল কালাম আজাদ প্রায় ৪ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনে এনুকে সহযোগিতা করেছে বলে

তদন্তে প্রমাণ পাওয়া গেছে।

অপর মামলার তদন্তে রূপন ভূঁইয়ার নামে স্থাবর ও অস্থাবর মিলে ৪২ কোটি ৯৩ লাখ ৯৬ হাজার ৮৭০ টাকার সম্পদ অর্জনের তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গেছে। এসব সম্পদের মধ্যে ৫ কোটি ৩৬ লাখ ৭৯ হাজার ৮৮৩ টাকার সম্পদ অর্জনের বৈধ উৎস পাওয়া গেলেও ৩৭ কোটি ৫৭ লাখ ১৬ হাজার ৯৮৭ টাকার সম্পদের কোনো বৈধ উৎস পাওয়া যায়নি। আসামি রূপন ভূঁইয়া এসব অবৈধ সম্পদ ক্যাসিনো ব্যবসা এবং বিভিন্ন অবৈধ কার্যক্রমের মাধ্যমে অর্জন করেছেন বলে তদন্তে প্রমাণ পাওয়া গেছে।

দুদক জানায়, ২০১৯ সালের ২৩ অক্টোবর অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে এনামুল হক এনু ও তার ভাই রূপন ভূঁইয়াসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করে দুদক। দুদকের সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী বাদী হয়ে এনু ও তার দুই সহযোগী হারুনুর রশীদ ও আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় পরস্পর যোগসাজশে বিভিন্ন অবৈধ ব্যবসার মাধ্যমে ২১ কোটি ৮৯ লাখ ৪৩ হাজার টাকার সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়। মামুনুর রশীদ চৌধুরী এ মামলার তদন্ত করেন।

দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নেয়ামুল আহসান গাজী বাদী হয়ে রূপন ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলায় ১৪ কোটি ৪৯ লাখ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়। পরে তিনি নিজেই এ মামলার তদন্তের দায়িত্ব পান।

জানা গেছে, ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরু করেছিলেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। ওই সময়ে গে-ারিয়া থানা আওয়ামী লীগের তৎকালীন সহসভাপতি এনু ও তার ভাই থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রূপন ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের পর দল থেকে তাদের বহিস্কার করা হয়। ২০১৯ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর গে-ারিয়া থানা আওয়ামী লীগের তৎকালীন নেতা দুই ভাই, তাদের এক কর্মচারী এবং তাদের এক বন্ধুর বাসায় অভিযান চালিয়ে প্রায় ৫ কোটি টাকা, ৮ কেজি সোনা এবং ৬টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করে র‌্যাব।

advertisement