advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

রাবিতে সিন্ডিকেট সভা ঠেকাতে ‘অবৈধ’ নিয়োগপ্রাপ্তদের অবস্থান

নিজস্ব প্রতিবেদক
২২ জুন ২০২১ ২১:৪৫ | আপডেট: ২৩ জুন ২০২১ ০০:১৭
সংগৃহীত ছবি
advertisement

ফের আন্দোলনে নেমেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘অবৈধ’ নিয়োগপ্রাপ্তরা। রাজশাহীর স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের আশ্বাসে গতকাল সোমবার আন্দোলন স্থগিত করলেও আজ মঙ্গলবার ফের তারা আন্দোলন শুরু করেন। সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে সিন্ডিকেট সভা বসার কথা ছিল। তার আগে সন্ধ্যা ছয়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারিস রোড সংলগ্ন উপাচার্যের বাসভবনের সামনে আন্দোলনকারীরা অবস্থান নেন। উপাচার্যের বাড়ির সামনে নিয়োগপ্রাপ্তদের কেউ কেউ শুয়ে পড়েন।

জানা গেছে, গতকাল সোমবার দুপুরে আলোচনায় তিন দিনের মধ্যে তাদের সমস্যা সমাধান করার আশ্বাস দেওয়া হয়। কিন্তু তার কোনো সুরাহা না করেই আজ সিন্ডিকেট বসাতে চাচ্ছেন রুটিন উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা।

এর আগে গতকাল সোমবার দুপুরে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে তিন ঘণ্টা আলোচনা করে স্থানীয় সাংসদ আয়েন উদ্দিন ও মহানগর আওয়ামী লীগ এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। সভার পর চাকরিপ্রাপ্তরা আন্দোলন স্থগিত করেন। ক্যাম্পাসে প্রশাসনিক কার্যক্রমে বাধা দেবেন না বলেও তারা জানান। আন্দোলকারীদের দাবি, কোনো সমস্যার সমাধান না করেই আজ সিন্ডিকেট সভার আয়োজন করা হয়। যে কারণে সন্ধ্যার দিকে তারা উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নেন।

এদিকে সরেজমিনে দেখা গেছে, অবৈধ নিয়োগপ্রাপ্তদের অবস্থান কর্মসূচিতে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি ঠেকাতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। সিন্ডিকেট সভা নিয়োগপ্রাপ্তরা ঠেকাতে পারেন এমন আশঙ্কায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

এর আগে গত শনিবার ফাইন্যান্স কমিটির সভা হওয়ার কথা থাকলেও সেটি স্থগিত হয়ে যায়। জানা গেছে, স্থগিত হয়ে যাওয়া ফাইন্যান্স কমিটির সভা আজ সকাল ১০টায় হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেটি হয়নি।

সিন্ডিকেট সভা বাতিলের বিষয়ে এক চাকরিপ্রত্যাশী বলেন, তাদের নিয়োগ বিষয়ে প্রস্তাব তুলে বাতিল করতে পারে সে আশঙ্কায় তারা সিন্ডিকেট সভা করতে দেবেন না। এ ছাড়া শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে তিন দিনের মধ্যে তাদের বিষয়টি সমাধান করবে বলে যে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে, তার সমস্যা সমাধান আগে করতে হবে, পরে সিন্ডিকেট সভা।

এ বিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রুটিন উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহাকে ফোন দিলে তিনি ফোন ধরেননি। তাই তার বক্তব্য পাওয়া সম্ভব হয়নি।

advertisement