advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

ইউপি নির্বাচনী সহিংসতা
গৌরনদীতে ২ জন নিহতের মামলায় আসামি ১৫৭

গৌরনদী (বরিশাল) প্রতিনিধি
২৩ জুন ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ২২ জুন ২০২১ ২৩:৪২
advertisement

প্রথম ধাপে অনুষ্ঠিত গৌরনদী উপজেলার খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের দুটি কেন্দ্রে পৃথক দুটি নির্বাচনী সহিংসতায় ২ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। মামলায় ৫২ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ১০৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। গত সোমবার রাতে ও গতকাল মঙ্গলবার বিকালে গৌরনদী মডেল থানায় পৃথক দুটি হত্যামামলা দায়ের করা হয়। ৮ নম্বর ওয়ার্ডের নিহত আবু বক্কর ফকিরের বাবা আঞ্জু ফকির ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের নিহত মৌজে আলী মৃধার ছেলে নজরুল মৃধা মামলা দুটির বাদী। পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত অভিযোগে বিজয়ী ইউপি সদস্য প্রার্থীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

ভোট চলাকালে গত সোমবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার খাঞ্জাপুর

ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কমলাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়াকে কেন্দ্র করে মোরগ প্রতীকের সদস্য প্রার্থী ফিরোজ মৃধা ও টিউবওয়েল প্রতীকের সদস্য প্রার্থী মন্টু হাওলাদারের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে প্রতিপক্ষের হাতবোমার আঘাতে মৌজে আলী মৃধা নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়।

একইদিন সন্ধ্যা ৬টার দিকে ওই ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের খাঞ্জাপুর পাঙ্গাশিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গণনা শেষে টিউবওয়েল প্রতীকের সদস্য প্রার্থী গিয়াস মৃধাকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। এতে তার সমর্থকরা বিজয় উল্লাস শুরু করেন। এ সময় মোরগ প্রতীকের পরাজিত প্রার্থী আরজ আলী সরদারের সমর্থকরা তাদের লক্ষ্য করে বোমা হামলা চালায়। এতে গিয়াস মৃধার সমর্থক আবু বক্কর ফকির ঘটনাস্থলে নিহত হয়।

গৌরনদী মডেল থানার ওসি (তদস্ত) মো. তৌহিদুজ্জামান সোহাগ জানান, সংঘর্ষস্থল ও ভোটকেন্দ্রের আশপাশের এলাকা থেকে সোমবার দুপুরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে আনা মোরগ প্রতীকের সদস্য পদপ্রার্থী ফিরোজ মৃধা, জালভোট দাতা নয়ন মৃধা ও টিউবওয়েল প্রতীকের সদস্য পদপ্রার্থী মন্টু হাওলাদারের সমর্থক মাহাফুজুর রহমান ইমনকে মৌজে আলী মৃধা হত্যামামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে গতকাল সকালে বরিশাল আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। তবে আবু বক্কর ফকির হত্যামামলায় পুলিশ এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

advertisement