advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

শিমুলীয়া-বাংলাবাজার রুটে যাত্রীদের উভয়মুখী চাপ

শিবচর (শরীয়তপুর) প্রতিনিধি
২২ জুলাই ২০২১ ১৫:১৫ | আপডেট: ২২ জুলাই ২০২১ ১৮:০৭
ছবি : আমাদের সময়
advertisement

কাল শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে কঠোর লকডাউন। বন্ধ থাকবে গণপরিবহন। তাই লকডাউনের আগের দিন আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীতে কর্মস্থলে ফিরছেন মানুষ। সকাল থেকে দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে যাত্রীরা ঢাকায় ফিরছেন। এদিকে ১৪ দিনের লকডাউনের কারণে অনেকে আবার ফিরছেন গ্রামে। ফলে যাত্রীদের উভয়মুখী চাপ সৃষ্টি হয়েছে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে।

যাত্রীরা দক্ষিণাঞ্চলের জেলাগুলো থেকে বিভিন্ন যানবাহনে বাংলাবাজার ঘাটে আসছেন। বাংলাবাজার ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া প্রতিটি লঞ্চই ছিল যাত্রীতে ভরপুর। লঞ্চগুলোতে ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী নেওয়ার কথা থাকলেও তা মানা হচ্ছে না। প্রতিটি লঞ্চেই নেওয়া হচ্ছে অতিরিক্ত যাত্রী। ফলে উপেক্ষিত হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ না থাকলেও দুপুরের পর চাপ শুরু হয়। বাংলাবাজার ছেড়ে ছেড়ে যাওয়া প্রতিটি ফেরিতে যানবাহনের পাশাপাশি বিপুল সংখ্যক যাত্রী ছিল। এদিনও ঢাকা থেকে অনেক যাত্রী দক্ষিণাঞ্চলে ফিরছেন। এদিকে পদ্মায় অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধির ফলে তীব্র স্রোতে ফেরি পারাপারে দ্বিগুণ সময় লাগছে। এই রুটে স্পিডবোট চলাচল বন্ধ থাকলেও ১৫ টি ফেরি ৮৭ টি লঞ্চ চলাচল করছে।

বিআইডব্লিউটিএ বাংলাবাজার ঘাট পরিদর্শক আক্তার হোসেন বলেন, ‘আজ সকাল থেকেই লঞ্চে উভয়মুখী যাত্রী চাপ রয়েছে। আমরা প্রতিটি লঞ্চে ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী পারাপার করছি। স্বাস্থ্যবিধি মানতে যাত্রীদের বারবার অনুরোধ করা হচ্ছে।’

বিআইডব্লিউটিএ বাংলাবাজার ঘাট ম্যানেজার মো. সালাউদ্দিন বলেন, ‘সকাল থেকে যানবাহন ও যাত্রীদের চাপ না থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যানবাহন ও যাত্রীদের ভিড় বাড়তে শুরু করেছে। আমরা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অ্যাম্বুলন্সে, যাত্রীবাহী গাড়িসহ জরুরি যানবাহন পারাপার করছি। পদ্মায় পানি বৃদ্ধির ফলে তীব্র স্রোতে ফেরি পারাপার কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে।’

advertisement