advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

চাচার ‘ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা’ স্কুলছাত্রী, থানায় বাবার অভিযোগ

নীলফামারী প্রতিনিধি
২৪ জুলাই ২০২১ ২০:০১ | আপডেট: ২৪ জুলাই ২০২১ ২০:২৯
প্রতীকী ছবি
advertisement

বিয়ের দাওয়াতে স্কুল পড়ুয়া ভাতিজিকে ‘ধর্ষণ করেছেন’ চাচা। সেই ভাতিজি এখন ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা। এ ঘটনা জানিয়ে নীলফামারী সদর থানায় অভিযোগ দিয়েছেন অভিযুক্তের ভাই। গতকাল শুক্রবার এই অভিযোগ করেন সেই স্কুলছাত্রীর বাবা।

ভুক্তভোগীর পরিবার জানায়, ছয় মাস আগে চাচার বাড়িতে বিয়ে খেতে যায় তার ভাতিজি। বিয়ের দিন সন্ধ্যায় বাথরুম থেকে বের হলে পেছন থেকে তার চাচা গলায় ছুরি ধরে পাশের কলাবাগানে নিয়ে যান। সেখানে হত্যার ভয় দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন। এ ছাড়া ধর্ষণের ঘটনা পরিবারকে জানালেও তার বাবা-মাকেও হত্যার হুমকি দেন। ভয়ে পরিবারের কাউকে কিছু জানায়নি ওই ছাত্রী।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগীর বাবা বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে আমার মেয়ের পেট ব্যথা করছিল। বিভিন্ন ওষুধ খাওয়ানোর পরও ঠিক হয়নি। পরে ক্লিনিকে আলট্রাসনোগ্রাম করার পর জানতে পারি, আমার মেয়ে ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তখন মেয়েকে জিজ্ঞেস করলে সে জানায়, বিয়ে খেতে গিয়ে তারা চাচার ধর্ষণের শিকার হয়েছে সে। এই ঘটনা কাউকে জানালে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়। ভয়ে কিছু জানায়নি আমার মেয়ে। পরে বিচার চেয়ে থানায় অভিযোগ দিয়েছি।’

স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহ জামাল বলেন, ‘স্থানীয়ভাবে বিষয়টি আপোষের চেষ্টা চলছে।’ এ বিষয়ে নীলফামারী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রউফ বলেন, ‘অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

advertisement