advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

বহাল থাকল আইন
অবসরপ্রাপ্তদের গুরুতর অপরাধে পেনশন বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৭ জুলাই ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৭ জুলাই ২০২১ ০৮:৫০ এএম
advertisement

অবসরে গিয়ে কোনো কর্মচারী গুরুতর অপরাধ করলে তার অবসর সুবিধা বা পেনশন সম্পূর্ণ কিংবা আংশিক বাতিল, স্থগিত বা প্রত্যাহার করার বর্তমান বিধানই বহাল রাখল মন্ত্রিসভা। ‘সরকারি চাকরি আইন, ২০১৮’ সংশোধন করে এই বিধান বাতিলের প্রস্তাব আনা হলেও মন্ত্রিসভা তাতে সায় দেয়নি। গতকাল সোমবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে ‘সরকারি চাকরি (সংশোধন) আইন, ২০২১’-এর খসড়া নীতিগত অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, সরকারি চাকরি আইন, ২০১৮-এর কয়েকটি ধারা সংশোধনের প্রস্তাব আনা হয়েছিল। আইনের ৫১(৪) ধারায় বলা হয়েছে- ‘অবসর সুবিধাভোগী কোনো ব্যক্তি গুরুতর অপরাধে দ-প্রাপ্ত বা কোনো গুরুতর অসদাচরণের দোষে দোষী সাব্যস্ত হইলে, কারণ দর্শাইবার যুক্তিসঙ্গত সুযোগ প্রদান করিয়া, সরকার বা নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ, তাহার অবসর সুবিধা সম্পূর্ণ বা আংশিকভাবে বাতিল, স্থগিত বা প্রত্যাহার করিতে পারিবে। এই ধারাটি বাতিলের প্রস্তাব করা হয়েছিল। ক্যাবিনেট সেটা এগ্রি করেনি। ক্যাবিনেট আগেরটিই বহাল রেখেছে।

তিনি জানান, প্রস্তাব ছিল যে রিটায়ার্ড করবে তার যাতে পেনশন থেকে কোনো টাকা কাটা না হয়। মন্ত্রিসভা এটা অনুমোদন দেয়নি। আগে যেটা ছিল সেটাই রেখে দিয়েছে। আরেকটি সংশোধন আনা হয়েছিল, আইনে আছে- পিআরএলে যাওয়া ব্যক্তিদের অন্য কোথাও চাকরি করা কিংবা বিদেশে যাওয়ার জন্য সরকারের অনুমোদনের প্রয়োজন নেই। প্রস্তাব আনা হয়েছিল এ ক্ষেত্রে সরকারের অনুমোদন লাগবে। এটাও ক্যাবিনেট এগ্রি করেনি। আগে যেটা ছিল, সেটাই থাকবে।

advertisement