advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

‘আমার লক্ষ্য ২০২৮ অলিম্পিক স্বর্ণ জয়’

ক্রীড়া ডেস্ক
২৮ জুলাই ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৭ জুলাই ২০২১ ১১:০৭ পিএম
advertisement

কেনো গেমসে হেরে গেলে মন খারাপ হয়। রোমান সানাও ব্যতিক্রম নন। তবে আবারও ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তিনি। পরের অলিম্পিক ২০২৪ সালে। আর সেখানে সেরাটা দিতে চান দেশ সেরা এই আরচার।

কানাডার ডুয়েনাসের কাছে হেরে যাওয়ার পর কথা বলেছেন সানা। মিডিয়াকে বলেছেন, ‘আমি সত্যিই কিছুটা হতাশ। ১০ পয়েন্টের জন্য পারলাম না। আমার এই ম্যাচটি জেতার ভালো সুযোগ ছিল। আমার লক্ষ্য আসলে ২০২৮ অলিম্পিক স¦র্ণ জয়। তা ছাড়া ২০২৪ সালের অলিম্পিকে তো যাবই। আমি আমার সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করব।’

এলিমিনেশন রাউন্ডের প্রথম ম্যাচ জিততে বেগ পেতে হয়নি রোমান সানার। গ্রেট ব্রিটেনের টম হলকে সহজেই ৭-৩ সেট পয়েন্টে হারিয়ে শীর্ষ ৩২-এ উঠে গিয়েছিলেন দেশসেরা আর্চার। কিন্তু দ্বিতীয় রাউন্ডে আর পারলেন না রোমান সানা। প্রথম সেট জিতে ভালো শুরুর পর শেষ পর্যন্ত ৪-৬ সেট পয়েন্টে হেরে গেছেন কানাডার ক্রিসপিন ডুয়েনাসের কাছে।

প্রিকোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ের শুরুটাও দারুণ হয়েছিল রোমান সানার। প্রথম সেটে ৯, ৯, ৮ স্কোর করে ২৬-২৫ ব্যবধানে জিতে ২ পয়েন্ট নিয়ে নেন। এমন সূচনার পর দ্বিতীয় ও তৃতীয় সেট হেরে যান রোমান সানা।

তবে ৪-২ সেট পয়েন্টে পিছিয়ে পড়েও দারুণভাবে প্রত্যাবর্তন করেছিলেন চতুর্থ সেট জিতে (২৭-২৬)। শেষ সেটটায় যখন তীর ছুড়তে শুরু করেন রোমান সানা তখন দুই জনের পয়েন্ট চার করে। জিতলেই শেষ ষোলো- এমন এক পরিস্থিতির সেটটি রোমান হেরে গেলেন ২৬-২৫ ব্যবধানে। আশা জাগিয়েও পরের ধাপে উঠতে না পারার হতাশা স্বাভাবিকভাবেই আছে। তবে খারাপ লাগা ঝেড়ে ফেলে ওয়ার্ল্ড আরচারির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় জানালেন তিনি। দিলেন আকাশ ছোঁয়ার প্রতিশ্রুতি। তিনি বলেন, ‘আমি আসলেই একটু হতাশ, জয়ের জন্য দরকার ছিল ১০। ম্যাচটা জয়ের খুবই ভালো সুযোগ ছিল আমার। আমার লক্ষ্য ২০২৮ সালের অলিম্পিকের সোনা। তাই ২০২৪ সালের অলিম্পিকসও (প্যারিসে) তো খেলব। সর্বোচ্চটাই দেব আমি।’

২০১৯ সালে নেদারল্যান্ডসে হওয়া বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে রিকার্ভ পুরুষ এককে ব্রোঞ্জ জিতে বাংলাদেশকে সরাসরি অলিম্পিকে খেলার টিকিট এনে দিয়েছিলেন রোমান। টোকিওতে যাওয়া দেশের ছয় অ্যাথলেটের মধ্যে কেবল তিনিই সরাসরি অলিম্পিকে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিলেন। এলিমিনেশন রাউন্ডে তার শুরুটাও হয়েছিল জয় দিয়ে। গ্রেট ব্রিটেনের টম হলকে ৭-৩ সেট পয়েন্টে হারিয়ে শেষ ষোলোয় উঠেছিলেন তিনি। র‌্যাঙ্কিং রাউন্ডে ৬৬২ স্কোর গড়ে ৬৪ প্রতিযোগীর মধ্যে ১৭তম হয়েছিলেন রোমান। টোকিওর আসরে এর আগে রিকার্ভ মিশ্র দ্বৈতে দিয়া সিদ্দিকীকে সঙ্গে নিয়ে রোমান পার হতে পারেননি শেষ ষোলোর বৈতরণী। দক্ষিণ কোরিয়ার জুটির কাছে হেরে যান ৬-০ সেট পয়েন্টে।

advertisement