advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

লঘুচাপে ঝড়ের শঙ্কায় তিন নম্বর সংকেত সাগরে

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৮ জুলাই ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৮ জুলাই ২০২১ ০২:৪৭ এএম
advertisement

সাগরে ফের লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। সঙ্গে বেশ সক্রিয় রয়েছে মৌসুমি বায়ুও। এমন পরিস্থিতিতে উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো হাওয়ার শঙ্কায় সমুদ্র বন্দরগুলোকে তিন নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। লঘুচাপের প্রভাবে রাজধানী, দেশের দক্ষিণাঞ্চলসহ দেশের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টির আভাস রয়েছে। ভূমিধসেরও শঙ্কা রয়েছে পাহাড়ে।

জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ জানান, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও সংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। এটি সুস্পষ্ট লঘুচাপে রূপ নিতে পারে। তবে নিম্নচাপে রূপ নেওয়ার শঙ্কা নেই। পাশাপাশি মৌসুমি বায়ুও দেশের ওপর সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে রয়েছে প্রবল অবস্থায়। এতে আগামী দুই-তিন দিন দেশের অধিকাংশ জায়গায় ভারী বর্ষণ হতে পারে। এর পর লঘুচাপের প্রভাব কেটে যাবে।

তার আগে লঘুচাপের প্রভাবে দেশের উপকূলীয় এলাকা, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও সমুদ্রবন্দরে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ জন্য চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে সাগরে থাকা সব ধরনের নৌযানকে উপকূলের কাছাকাছি সাবধানে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে- খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম, সিলেট ও খুলনা বিভাগের অধিকাংশ জায়গাসহ রাজশাহী ও ঢাকা, রংপুর, ময়মনসিংহ বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা কিংবা ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। কোথাও কোথাও হতে পারে মাঝারি থেকে ভারী বর্ষণ।

আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ জানান, সক্রিয় মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী (৪৪ থেকে ৮৮ মিলিমিটার) থেকে অতি ভারী (৮৯ মিলিমিটারের বেশি) বর্ষণ হতে পারে। অতিভারী বর্ষণে চট্টগ্রাম বিভাগের পাহাড়ি এলাকায় কোথাও কোথাও ভূমিধসের শঙ্কা রয়েছে।

রাজধানীসহ দেশের অনেক জায়গায় গতকাল মঙ্গলবার সকালেও এক পশলা বৃষ্টি হয়েছে। এ সময় ঢাকায় বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয় ২২ মিলিমিটার। গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১০৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয় কক্সবাজারে। আর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় রাজশাহীতে, ৩৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

advertisement