advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ছেলেকে বাঁচাতে কিডনি দিলেন মা

মুকুল কান্তি দাশ,চকরিয়া
২৯ জুলাই ২০২১ ০৯:৫১ পিএম | আপডেট: ২৯ জুলাই ২০২১ ০৯:৫১ পিএম
advertisement

মো. সালাহ উদ্দিন, বয়স পঁচিশের এই যুবক পরিবারের হাল ধরতে পাড়ি জমান বিদেশে। পাঁচ বছর সৌদি আরবে প্রবাস জীবন কাটিয়ে বাড়ি ফেরেন মাস কয়েক আগে। বিয়ে করে বৌ তুলেছেন ঘরে। কিন্তু বিয়ের এক মাসের মাথায় সালাহ উদ্দিন অসুস্থ হয়ে পড়েন। চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে জানতে পারেন তার দুটি কিডনি অচল হয়ে গেছে। একাধিক মেডিকেলে চিকিৎসা নিয়ে প্রবাস জীবনে কামানো সব অর্থ শেষ করেছেন তিনি। তাও সুস্থ হননি। শেস পর্যন্ত সম্পদও বিক্রি করেন, এখন নিঃস্ব তার পরিবার।

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের নতুনঘোনা এলাকার নুরুল আলমের ছেলে সালাহ উদ্দিন। চিকিৎসকরা জানান, কিডনি নষ্ট হয়ে পড়ায় তাকে বাঁচিয়ে তোলা সম্ভব নয়। এই অবস্থায় কেউ যদি তাকে কিডনি দেন, সেটি প্রতিস্থাপন করলে হয়ত সালাহ উদ্দিন বাঁচতে পারেন। এই অবস্থায় ছেলেকে বাঁচিয়ে রাখতে হাসপাতালে ছুটে যান সালাহ উদ্দিনের মা মর্তুজা বেগম। ছেলেকে নিজের একটি কিডনি দিয়েছেন তিনি।

এসব তথ্য জানিয়েছেন ঢাকা কিডনি ফাউন্ডেশন হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের চিকিৎসক শোয়াইব নোমানী। গতকাল বুধবার দুপুর ২টায় এ প্রতিষ্ঠানে সালাহ উদ্দিনের কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়। ডা. শোয়াইব নোমানী বলেন, ‘সফলভাবে কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। মা ছেলে দুজনই সুস্থ আছেন।’

চিকিৎসকের সঙ্গে কথা হলেও সালাহ উদ্দিনের পরিবারের কারও সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলা সম্ভব হয়নি।