advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

পোশাককর্মীদের টিকা আগামী সপ্তাহ থেকে

নিজস্ব প্রতিবেদক
৪ আগস্ট ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ৪ আগস্ট ২০২১ ০১:২৬ এএম
advertisement


অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দেশের ৪০ লাখ পোশাককর্মী করোনার টিকা পাবেন। ইতোমধ্যে কার্যক্রম শুরু হয়েছে, টিকা প্রয়োগ শুরু হবে আগামী সপ্তাহ থেকে। কারখানাগুলোকে চিঠি দিয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্মনিবন্ধন সনদ, কারখানার পরিচয়পত্রসহ শ্রমিক-কর্মচারীদের তালিকা পাঠাতে বলেছে তৈরি পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন-বিজিএমইএ এবং নিট পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন-বিকেএমইএ। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। পোশাকশিল্পের সংগঠনের নেতারা জানান, তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ৪০ লাখ শ্রমিকের
জন্য সমপরিমাণ টিকা পাওয়া গেছে সরকারের পক্ষ থেকে। এক মাস পর এসব কর্মীকে দেওয়া হবে দ্বিতীয় ডোজ। সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তত্ত্বাবধানে কারখানায় শ্রমিকদের টিকা দেওয়া হবে। এ জন্য কারখানায় নিয়োজিত চিকিৎসক ও নার্সরা সহযোগিতা করবেন। এরই মধ্যে শ্রমিক-কর্মচারীদের তালিকা সংশ্লিষ্ট এলাকার সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠাতে অনুরোধ করা হয়েছে। তাদের দ্রুত টিকার আওতায় আনতে টিকা দেওয়া হবে নিবন্ধন ছাড়াই। গাজীপুরের চারটি তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকদের অবশ্য গত ১৮ জুলাই থেকেই টিকা দেওয়া হচ্ছে। কারখানাগুলো হলোÑ কোনাবাড়ী এলাকার তুসুকা ডেনিম ও তুসুকা ওয়াশিং, গাজীপুরের লক্ষ্মীপুরার স্পেরো অ্যাপারেলস এবং ভোগরার রোজভ্যালি গার্মেন্ট।
জানতে চাইলে বিজিএমইএর সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, ‘ইতোমধ্যে কারখানাগুলোকে শ্রমিক-কর্মচারীদের তথ্য-পরিসংখ্যান সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠাতে বলা হয়েছে। চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে টিকা দেওয়ার কার্যক্রম শুরুর আশা করছি। তবে চট্টগ্রাম ইপিজেডের শ্রমিকদের টিকা দেওয়া শুরু হবে ৮ আগস্ট।’ বিকেএইএর সহসভাপতি মোহাম্মদ হাতেম বলেন, ‘চলতি মাসেই সরকার পোশাক শ্রমিকদের টিকা দেওয়ার কাজ শুরু করবে। সে জন্য আমরা ৩১ জুলাই সদস্যদের চিঠি দিয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্মনিবন্ধন সনদ, কারখানার পরিচয়পত্রসহ শ্রমিক-কর্মচারীদের তালিকা পাঠাতে অনুরোধ করেছি। ইতোমধ্যে কারখানাগুলো সে অনুযায়ী তালিকা পাঠাতে শুরু করেছে। আশা করা যায়, আগামী সপ্তাহ থেকে কারখানায় টিকা দেওয়া শুরু হবে। ধাপে ধাপে সব কারখানার শ্রমিক টিকা পাবেন। পুরো বিষয়টি ব্যবস্থাপনা করতে আগামী দুই মাসের জন্য ২০-২৫ চিকিৎসক ও নার্স নিয়োগের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’
করোনা মহামারী মোকাবিলায় দেশের অর্থনীতির স্বার্থে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পোশাক শ্রমিকদের জন্য ৮০ লাখ ডোজ টিকা চেয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়সহ সরকারের গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরে চিঠি দেয় বিজিএমইএ। পাশাপাশি দেশের পোশাক রপ্তানির বড় দুই বাজার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) কাছে পোশাক শ্রমিকদের জন্য টিকা এবং অ্যান্টিজেন টেস্ট কিট পাওয়ার বিষয়েও সহযোগিতা চায় সংগঠনটি।

advertisement