advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

হেলেনাকে ইঙ্গিত করে হাইকোর্ট
সাংবাদিকতার নামে এসব কী হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
৪ আগস্ট ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ৩ আগস্ট ২০২১ ১০:৫৪ পিএম
advertisement

ডিজিটাল প্লাটফর্ম ব্যবহার করে মিথ্যাচার, অপপ্রচার ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানোসহ বিভিন্ন অভিযোগে গ্রেপ্তার হেলেনা জাহাঙ্গীরের কর্মকা-ের প্রতি ইঙ্গিত করে হাইকোর্ট বলেছেন, ‘দেখেন না, এখন সাংবাদিকতার নামে কী হচ্ছে? কী এক জাহাঙ্গীর বের হয়েছে। আইপি টিভির নামে কী কী যেন করে। আইপি টিভি নামে কত চ্যানেল, কত টিভি বের হয়েছে।’ বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্টের একক ভার্চুয়াল বেঞ্চ গতকাল মঙ্গলবার এ কথা বলেন। দুদকের এক কর্মকর্তার বদলির

বিষয়ে আদালতের আদেশ নিয়ে দৈনিক পূর্বকোণ অসত্য প্রতিবেদন প্রকাশের ঘটনায় চলমান মামলার শুনানিকালে এ কথা বলেন হাইকোর্ট। অসত্য প্রতিবেদন প্রকাশ করায় ইতোমধ্যে ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছে পত্রিকাটি। এ ছাড়া আদালতের আদেশ নিয়ে অসত্য প্রতিবেদন প্রকাশের বিষয়ে আগামীকাল বৃহস্পতিবার আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট।

দুদকের চট্টগ্রাম কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিনকে গত ১৬ জুন পটুয়াখালী জেলা কার্যালয়ে বদলি করা হয়। ওই আদেশ চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়। সেটি বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমের হাইকোর্ট বেঞ্চের কার্যতালিকায় ছিল। আবেদনকারীর পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মো. মাজহারুল হক। রিট আবেদনটি শুনানির জন্য উপস্থাপিত হলে আদালত কোনো আদেশ দিতে রাজি হননি। এরপর সেটি কার্যতালিকা থেকে বাদ দেন। কিন্তু অ্যাডভোকেট মো. মাজহারুল হকের স্বাক্ষরে গত ২৯ জুলাই পাঠানো এক আইনজীবী সনদে বলা হয়, রিট আবেদনটি দুই সপ্তাহের জন্য মুলতবি করা হয়েছে।

ওই সনদের বরাত দিয়ে গত ৩০ জুলাই স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়- দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, চট্টগ্রাম ২-এর উপসহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিনের বদলির আদেশ দুই সপ্তাহের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। কোনো কোনো পত্রিকায় লেখা হয়, উপসহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিনকে স্বপদে বহাল রাখার আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

একই বিষয়ে আরেকটি রিট আবেদন সোমবার একই আদালতে উপস্থাপন করা হয়। রিট আবেদনকারী জনৈক শাহিদুল ইসলাম লিটন। এবার আইনজীবী ছিলেন আসানুর রহমান। আবেদন উপস্থাপনের পর অপর এক আইনজীবী রাকিব হাসান আদালতকে চট্টগ্রামের পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশের তথ্য জানান। এ সময় আদালত ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘এ জাতীয় প্রতিবেদন প্রকাশ এক ধরনের জালিয়াতি।’ এর পর দুদকের আইনজীবীকে ডেকে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এ ছাড়া এক আদেশে ওইসব পত্রিকায় সংশোধনী ছাপার নির্দেশ দেন।

এ অবস্থায় গতকাল দুদকের আইনজীবী অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান আদালতে বলেন, ‘দৈনিক পূর্বকোণ ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়ে সংশোধনী ছেপেছে।’ এ সময় আদালত বলেন, ‘আর যারা যারা এটা নিয়ে রিপোর্ট করেছে তাদেরও ছাপতে বলুন।’ খুরশীদ আলম তখন বলেন, ‘আদালতের আদেশ নিয়ে যে আইনজীবী সনদ দিয়েছেন, সেটি আমার কাছে জাল মনে হয়েছে। তার কারণ সেখানে বিচারপতির নামও ভুল লেখা হয়েছে।’ জবাবে আদালত বলেন, ‘এটা জাল হয়ে থাকলে এর দায়ভার রিট আবেদনকারীকে নিতে হবে। এটা ধরে নিতে হবে- রিট আবেদনকারী ও তার আইনজীবী সম্পৃক্ত। কারা কারা নিউজ ছেপেছে, তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন আপনারা (দুদক)। আপনার অফিস থেকে তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেবেন। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার আদেশ দেওয়া হবে।’ দুদক আইনজীবী বলেন, ‘ওই নিউজ বা রিট আবেদনের পেছনে দুদকের কর্মকর্তার হাত আছে কিনা, তা অনুসন্ধান করে ব্যবস্থা নেবে কমিশন।’ এ পর্যায়ে আদালত হেলেনা জাহাঙ্গীর ও আইপি টিভি নিয়ে মন্তব্য করেন।

advertisement