advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

আফগান সংকটে রোহিঙ্গা সমস্যা ঢাকা পড়েনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৩:০১ এএম
advertisement

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তনের বিষয়টি আফগানিস্তান সংকটের কারণে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ঢাকা পড়ে যায়নি বলে মনে করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন। তিনি বলেন, অনেকে বলবে- আফগান ইস্যুটা আসার ফলে রোহিঙ্গা ইস্যু সাইডলাইনে পড়ে গেছে। না, এটা এখনো খুব প্রাসঙ্গিক। গত বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের একটি হোটেলে প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরসঙ্গী পররাষ্ট্রমন্ত্রী বর্তমানে নিউইয়র্কে আছেন। জাতিসংঘ অধিবেশনের ফাঁকে বুধবার ‘রোহিঙ্গা ক্রাইসিস : ইমপারেটিভস ফর এ সাসটেইনেবল সল্যুশন’ শীর্ষক এক উচ্চ পর্যায়ের ভার্চুয়াল বৈঠকে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী। পরে বৈঠকে আলোচনা প্রসঙ্গে প্রেস ব্রিফিংয়ে আসেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। জাতিসংঘে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা ব্রিফিংয়ে বলেন, রোহিঙ্গাদের বিষয়ে একটা ভালো সমাধানের জন্য সভায় যারা উপস্থিত ছিলেন তারা একমত হয়েছেন। এই সমস্যার সমাধান মিয়ানমারেই রয়েছে এবং রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে নিরাপদে ফেরার মধ্যেই সমস্যার সমাধান। সেটার জন্য যা যা করণীয় তারা চেষ্টা করবে। মিয়ানমারের পরিস্থিতি যেন স্থিতিশীল হয় এবং রোহিঙ্গারা যেন সেখানে ফিরে যেতে পারে সে বিষয়ে আলোচনা হয়েছে বলেও জানান তিনি। গত বুধবার জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) অর্জনের পথে বাংলাদেশের সাফল্যের স্বীকৃতি হিসেবে ‘এসডিজি প্রোগ্রেস অ্যাওয়ার্ড’ পান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতিসংঘের সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট সলিউশনস নেটওয়ার্কের প্রেসিডেন্ট

অধ্যাপক জেফরি ডি. স্যাক্স মহামারীর মধ্যেও এসডিসি অর্জনে অগ্রগতি ধরে রাখায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করেন। সে প্রসঙ্গ তুলে ধরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তারা জানতে চান এটা কীভাবে সম্ভব হয়েছে? এই ম্যাজিকটা কীভাবে হলো? তুরস্ক সফরের কথা স্মরণ করে তিনি বলেন, টার্কির প্রেসিডেন্টও আমাকে বললেন, তোমার দেশের লোকজন এত কম মারা গেছে কোভিডের কারণে। তোমাদের ম্যাজিকটা কী? আমি বললাম ম্যাজিক হলো শেখ হাসিনা ও ওপরওয়ালা। আর আরেকটি হচ্ছে আমাদের দেশের তরুণদের সংখ্যা খুব বেশি হওয়ায় তাদের বোধহয় রোগ প্রতিরোধক্ষমতা অনেক। এ জন্য বোধহয় কোভিড একটু কম হয়েছে। এটা বৈজ্ঞানিক কোনো বিশ্লেষণ নয়, এটা একটা পারসেপশন।

advertisement
advertisement