advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

আড়াইহাজারে ধর্ষণের পর শিশুকে হত্যা

আড়াইহাজার (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৩:০১ এএম
advertisement

আড়াইহাজারে লিজা আক্তার (৫) নামে এক শিশুকে ধর্ষণ শেষে হাত-পা বেঁধে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বিকালে উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের পুরিন্দা বড়বাড়ি থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। সে উপজেলার পুরিন্দা গ্রামের রমযান আলীর মেয়ে। এ ঘটনার সঙ্গে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

তারা হলেন- উপজেলার আশুয়াট গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে সোহেল, কচুয়া থানার রঘুনাথপুর গ্রামের আলী আশরাফের ছেলে সামাদ ও পলাশ থানার

কবিরাজপুর গ্রামের নাসির উদ্দিনের ছেলে শিমুল। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সকাল ১০টা থেকে শিশু লিজাকে পাওয়া যাচ্ছিল না। অনেক খোঁজাখুঁজির পর পুরিন্দা এলাকার নান্নু মিয়ার বসতঘরটি তালাবদ্ধ দেখতে পান এলাকাবাসী। এতে স্থানীয়দের সন্দেহ হলে তালা ভেঙে ঘরে দেখেন লিজার লাশ পড়ে আছে। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে। স্থানীয়রা জানান, পুরিন্দা গ্রামের নান্নু মিয়ার বাড়িতে সামাদ নামের এক লোক ভাড়া থাকে। তার সঙ্গে ৩/৪ জন লোক সব সময় আসা-যাওয়া করে থাকে। এরা বিভিন্ন ফ্যাক্টরিতে কাজ করে থাকেন। নিখোঁজ লিজার লাশ সামাদের ঘর থেকে উদ্ধার করা হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে শিশুটিকে হত্যা করা হয়েছে।

আড়াইহাজার থানার উপ-পরিদর্শক এসআই সালেহ আহমেদ জানান, স্থানীয়রা তিনজনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। 

আড়াইহাজার থানার ওসি (তদন্ত) জোবায়ের হোসেন জানান, এই ব্যাপারে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। ধর্ষণের কোন আলামত আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে।

advertisement
advertisement