advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

ক্লাব ক্যাটাগরিতে লড়াইয়ের আভাস

বিসিবি নির্বাচন

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১১:৫২ পিএম
advertisement

আগামী ৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নির্বাচন। এ নির্বাচন সামনে রেখে শুক্র ও শনিবার পরিচালক পদের মনোনয়নপত্র বিক্রি করেছে নির্বাচন কমিশন। ২৩টি পদের জন্য মনোনয়নপত্র কিনেছেন মোট ৩২ জন। ক্লাব ক্যাটাগরিতে লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি। ১২টি পদের জন্য জন্য ১৭ জন মনোয়নপত্র কিনেছেন। তবে শেষ দিন কিছুটা চমকে দিয়েছেন নাজমুল আবেদীন ফাহিম। ক্যাটাগরি-৩ থেকে পরিচালক হওয়ার জন্য মনোনয়নপত্র কিনেছেন এই ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ। তাকে লড়াই করতে হবে খালেদ মাহমুদ সুজনের বিপক্ষে। এ ছাড়া ক্যাটাগরি-২ থেকে মনোনয়নপত্র কিনেছেন নাজমুল হাসান পাপন। তিনি বলেন, ‘এখানে এসে বেশ কিছু নতুন মুখ দেখেছি। এটা দেখে আমি অনেক খুশি। এটাই আমি চাচ্ছি যে নির্বাচন হোক। নতুন নতুন মানুষ আসুক।’ প্রার্থীরা আগামীকাল রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র দাখিল করবেন। এর পরদিন মনোনয়নপত্র বাছাই ও তালিকা প্রকাশ করবে নির্বাচন কমিশন।

মনোনয়নপত্র কিনলেন যারা : আঞ্চলিক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার প্রতিনিধি (ক্যাটাগরি-১)। ১০টি পদের বিপরীতে এই ক্যাটাগরি থেকে মনোনয়নপত্র নিয়েছেন ১৩ জন। ঢাকা বিভাগ থেকে পরিচালক হতে পারবেন ২ জন। এই বিভাগ থেকে মনোনয়ন নিয়েছেন মোট ৪ জনÑ তানভীর আহমেদ (নারায়ণগঞ্জ), নাঈমুর রহমান (মানিকগঞ্জ), আশফাকুল ইসলাম (কিশোরগঞ্জ) ও খালিদ হোসেন (মাদারীপুর)। সিলেট বিভাগ থেকে পরিচালক হতে পারবেন একজন। এই বিভাগ থেকে মনোনয়নপত্র নিয়েছেন শফিউল আলম চৌধুরী। চট্টগ্রাম বিভাগ থেকে পরিচালক হতে পারবেন দুজন। এই বিভাগ থেকে মনোনয়নপত্র নিয়েছেন আকরাম খান ও আ. জ. ম. নাছির উদ্দিন। খুলনা বিভাগ থেকে পরিচালক হতে পারবেন দুজন। এই বিভাগেও দুজনই প্রার্থী। তারা হলেনÑ শেখ সোহেল ও কাজী ইনাম আহমেদ। বরিশাল বিভাগ থেকে আলমগীর খান, রাজশাহী বিভাগ থেকে খালেদ মাসুদ পাইলট ও সাইফুল আলম স্বপন, রংপুর বিভাগ থেকে আনোয়রুল ইসলাম মনোনয়নপত্র কিনেছেন।

ঢাকা মেট্রোপলিটন ক্লাব প্রতিনিধি (ক্যাটাগরি ২)। ১২টি পদের জন্য এ ক্যাটাগরি থেকে মনোনয়নপত্র কিনেছেন ১৭ জন। তারা হলেনÑ নাজমুল হাসান পাপন (আবাহনী), গাজী গোলাম মুর্তজা (গাজী গ্রুপ), নজিব আহমেদ (শেখ জামাল), মাহবুব উল আনাম (মোহামেডান), মাসুদুজ্জামান (মোহামেডান), রশীদ নিযাম (শাইনপুকুর), সাইফুল ইসলাম (ওল্ড ডিওএইচএস), সালাউদ্দিন চৌধুরী (কাকরাইল বয়েজ ক্লাব), ইসমাইল হায়দার মল্লিক (শেখ জামাল), এনায়েত হোসেন (আজাদ স্পোর্টিং), ফাহিম সিনহা (সূর্য তরুণ), ইফতেখার রহমান (ফেয়ার ফাইটার্স), মনজুর কাদের (ঢাকা এসেটস), আবদুর রহমান (মিরপুর বয়েজ), শওকত আজিজ রাসেল (আম্বার স্পোর্টিং), রফিকুল ইসলাম (গাজী টায়ার্স), মনজুর আলম (আসিফ শিফা)।

অন্যান্য প্রতিনিধি (ক্যাটাগরি-৩) : পরিচালক পদ সংখ্যা ১টি। তবে এই ক্যাটাগরি থেকে মনোনয়নপত্র কিনেছেন দুজন। সাবেক ক্রিকেট খেলোয়াড় সংস্থার পক্ষ থেকে খালেদ মাহমুদ সুজন এবং বিকেএসপির পক্ষ থেকে নাজমুল আবেদীন ফাহিম। বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটিতে ছিলেন নাজমুল আবেদীন। সেখান থেকে পদত্যাগ করে নিজের পুরনো ঠিকানা বিকেএসপিতে ফিরে গেছেন এ ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ। তবে এবার বিসিবির নতুন পরিচালনা পর্ষদের সদস্য হতে আগ্রহী তিনি। তার সঙ্গে লড়াই হবে আগেরবার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত খালেদ মাহমুদ সুজনের। নাজমুল আবেদীন জানেন, সুজন শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী। তিনি মনে করেন, তার যোগ্যতা আছে এবং অনেক কিছু দেওয়ার আছে। নাজমুল আবেদীন বলেন, ‘আমাকে জিততেই হবে তা না কিন্তু। তবে আমি জিততেও পারি। আমি জানি ও ফেভারিট। সবাই হয়তো তাই বলবে। আমার মনে হয় এ জায়গায় আমারও যোগ্যতা আছে এবং অনেক কিছু দেওয়ার আছে। বোর্ড প্রেসিডেন্ট কয়েক দিন আগেই বলেছিলেন, তিনি নতুন মুখ দেখতে চান, নতুন ধারণা চিন্তাভাবনা চান। আমি সুযোগ পেলে নতুন ভাবনা নিয়ে আসতে পারব। আমি আসলে টেবিলে নতুন কিছু দিতে পারব যা বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য কাজে লাগবে।’ অন্যদিকে নাজমুল আবেদীনের চ্যালেঞ্জ নিচ্ছেন খালেদ মাহমুদ সুজন। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে এটাই স্বাভাবিক। কেউ না কেউ দাঁড়াবে এটাই প্রত্যাশিত। ফাহিম ভাই আমার কোচ, অনেক সিনিয়র। বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট বিভাগে উনি আবার আমার অধীনে ছিলেন। আমি চ্যালেঞ্জ সব সময় পছন্দ করি। কাউন্সিলরদের যে কেউ নির্বাচন করতে পারেন। আমরা চাই স্বচ্ছ নির্বাচন হোক। নতুন চিন্তাভাবনা গুরুত্বপূর্ণ। নতুন কেউ আসলে ভালো হবে না কিংবা পুরনোরা থাকলে এগোবে না এমনটা নয়।’

প্রসঙ্গত, ১৭১ জন কাউন্সিলর তিন ক্যাটাগরিতে নির্বাচনে ভোট দেবেন। ক্যাটাগরি ১-এ কাউন্সিলর আছেন ৭১ জন। ক্যাটাগরি ২-এ কাউন্সিলর আছেন ৫৭ জন। ক্যাটাগরি ৩-এ কাউন্সিলর ৪৩ জন।

ইতোমধ্যে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পরিচালক নির্বাচিত হয়েছেন সিলেট থেকে শফিউল আলম চৌধুরী, চট্টগ্রাম থেকে আকরাম খান ও আ. জ. ম. নাসির, খুলনা থেকে শেখ সোহেল ও কাজী ইনাম আহমেদ, বরিশাল থেকে আলমগীর খান ও রংপুর থেকে অ্যাডভোকেট আনোয়ারুল ইসলাম। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ থেকে মনোনীত হয়েছেন আহমেদ সাজ্জাদুল আলম ও জালাল ইউনুস।

advertisement
advertisement