advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

বাংলাদেশ সেমি-ফাইনাল খেলবে, বিশ্বাস সুজনের

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১০ অক্টোবর ২০২১ ০৫:১৩ পিএম | আপডেট: ১০ অক্টোবর ২০২১ ০৬:৫৫ পিএম
বাংলাদেশ ক্রিকেট দল
advertisement

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে দারুণ কয়েকটি সিরিজ কাটিয়েছে বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডের মতো দলগুলোর সঙ্গে দাপুটে সিরিজ জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে বিশ্বকাপ মিশনে গিয়েছে টাইগাররা। তারপরও নির্দিষ্ট লক্ষ্য স্থির না করে প্রতিটি ম্যাচেই জয়ের জন্য মাঠে নামার কর্মপরিকল্পনার কথা জানিয়েছিলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। একই বার্তা ছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডেরও (বিসিবি)।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসরগুলোতে মূল পর্ব থেকে খালি হাতে ফিরেছে বাংলাদেশ। একমাত্র ২০০৭ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারানো ছাড়া আর কোনো অর্জন নেই টাইগারদের। সেই বাংলাদেশ দল এখন অনেকখানি বদলেছে, যার কারণেই দলের পারফরম্যান্স বিবেচনায় বাংলাদেশকে এই বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালে দেখতে চান বিসিবির নব-নির্বাচিত পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন।

আজ রোববার মিরপুরে সংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সুজন বলেন, ‘আমার প্রত্যাশা সবসময় ভালো। আমি চিন্তা করি বাংলাদেশ নিজেদের সেরাটাই খেলব। বাংলাদেশ সেমি-ফাইনাল খেলবে বলে আমি বিশ্বাস করি। আমাকে অনেকেই প্রশ্ন করতে পারে, নিউজিল্যান্ড, ভারত, শ্রীলংকা কিংবা পাকিস্তানের মতো বড় বড় টিম থাকতে আমরা কীভাবে সেমিফাইনাল খেলব। আমি বলব–এই সংস্করণটা এমন একটা সংস্করণ, যে কেউ এখানে হারাতে পারেন। আমরা কিন্তু এর আগেও ভারতের সঙ্গে এ সংস্করণে জিততে জিততে হেরেছি। জেতা ম্যাচ আমরা হেরেছি। বারবার তো আমরা এক ভুল করব না।’

তিনি বলেন, ‘আমার টিমে মুশফিক, সাকিব, রিয়াদ, মুস্তাফিজ যারা সিনিয়র প্লেয়ার আছে। আমি বলব লিটন এখন অনেক অভিজ্ঞ. নাঈম শেখ–তারা যদি জ্বলে ওঠে আমাদের আটকানো মনে হয় মুশকিল হবে। আমি বলব যে যারা খেলবে, তারা যেন নিজের জায়গাটা পাকাপোক্ত করতে পারে।’

বিশ্বকাপের মঞ্চে সব দলই লেগ স্পিনারের দিকে নজর দিয়েছে। বাংলাদেশও স্ট্যান্ড বাই হিসেবে রুবেল হোসেনের সঙ্গে লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে নিয়েছিল। কিন্তু মূল লড়াইয়ের আগে রুবেলকে রেখে বিপ্লবকে পাঠিয়ে দিচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্ট। এর কারণে কি হতে পারে, তা নিয়ে সুজন বলেন, ‘আমি এটি পুরোপুরিভাবে বলতে পারব না। টিম সিলেকশনের ব্যাপার। ওখানে বুঝেই ওনারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। হয়তোবা রুবেলকে প্রয়োজন, এজন্য রুবেলকে রাখা হয়েছে। তার তো বহুদিনের অভিজ্ঞতা। অবশ্যই রুবেলকে প্রয়োজন বলেই রেখেছে।’

‘কোভিড সমস্যা আছে। এখন আমি যদি একটা প্লেয়ারকে ঢাকায় পাঠিয়ে দিই, আবার নিই তখন দেখা যাবে যে বায়োবাবল করতে হবে। তখন দেখা যাবে আমাদের দুটি ম্যাচ চলে যাবে, তাহলে লাভ কি আমাদের বায়োবাবল করে। এজন্য অভিজ্ঞ ক্রিকেটার কিছু রেখে দিচ্ছে, আমার মনে হয় সেটিই (বায়োবাবল) কারণ। কারণ কেউ যদি হঠাৎ ইনজুরিতে পড়ে রুবেল বা যাকে দরকার তাকে তো হুট করে নেওয়া যাবে না। তাকে তো সঙ্গে সঙ্গে খেলাতে পারছেন না। মহামারী যদি না থাকত তাহলে চান্স ছিল, এখন তো সেই সুযোগটা নেই। এজন্যই রিজার্ভ হিসেবে রুবেলকে রেখে দিচ্ছে,’যোগ করেন তিনি।

advertisement