advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

শেষ সময়ের পেনাল্টি নিয়ে বিতর্ক

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১৪ অক্টোবর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৩ অক্টোবর ২০২১ ১০:৩৫ পিএম
advertisement

মালদ্বীপে চলমান সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে খেলার স্বপ্ন পূরণ হলো না বাংলাদেশ ফুটবল দলের। জামাল, তপুদের সামনে একটাই সমীকরণ ছিল- জিতলেই ফাইনালে খেলবেন তারা। ড্র কিংবা হারলেই বিদায় ঘণ্টা বেজে যাবে। কিন্তু প্রাথমিক পর্বে নিজেদের চতুর্থ ও শেষ ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে দশ জনের দলে পরিণত হয়ে ১-১ গোলে ড্র করে বাংলাদেশ। ৯ মিনিটে সুমন রেজার গোলে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় লাল-সবুজের জার্সিধারীরা। ৮৫ মিনিট পর্যন্ত এই লিড ধরে রাখে তারা। কিন্তু ৮৬ মিনিটেই রেফারির এক বিতর্কিত সিদ্ধান্তেই সব শেষ হয়ে যায়! ডি-বক্সের মধ্যে ভেসে আসা বলে প্রতিপক্ষ ফরোয়ার্ডকে পুশ করেন সাদউদ্দিন। সঙ্গে সঙ্গে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। পেনাল্টির সুযোগ পেয়ে ম্যাচে ১-১ সমতায় ফেরায় নেপাল। পেনাল্টি থেকে গোল করেন নেপালের অঞ্জন বিস্টা। তাতেই স্বপ্ন ভঙ্গ হয় বাংলাদেশের। কিন্তু সেটি ফাউল ছিল কিনা- এ নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। সেই বিতর্ক ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে। সেখানে বাংলাদেশের ফুটবলপ্রেমীরা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করেছেন। এর আগে ডি-বক্সের বাইরে বাংলাদেশের গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকোর হাতে বল লেগে যায়। এজন্য তাকে লাল কার্ড দেখে মাঠের বাইরে চলে যেতে হয়েছে। অনেকের মতে, জিকোর লাল কার্ডটির সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল। কিন্তু খেলার শেষ দিকে সাদউদ্দিনের যে ফাউলটি পেনাল্টির রূপ পেয়েছে- সেটি নিয়ে বিতর্ক ছড়িয়েছে। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে উজবেকিস্তানের রেফারি এক্সল রিসকুলেভের এক হাত নিয়েছেন ফুটবলপ্রেমীরা। শহীদ নামের এক ফুটবল ভক্ত ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘কোনোভাবেই এটা ফাউল ছিল না। রেফারির কল্যাণে ড্র করেছে নেপাল।’ আরেকজন লিখেছেন, ফাইনালের পথেই ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু রেফারির বিতর্কিত সিদ্ধান্তের কাছেই হেরে গেছেন জামাল ভূঁইয়ারা। এভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ফুটবল সমর্থকরা। রেফারির দেওয়া সেই বিতর্কিত সিদ্ধান্ত নিয়ে ফুটবলের বিভিন্ন মহলেও প্রশ্ন উঠছে। উজবেকিস্তানের ওই রেফারি আগে বাংলাদেশ-মালদ্বীপ ম্যাচে চতুর্থ অফিসিয়াল হিসেবে ছিলেন।

এবারের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে মোট চার ম্যাচ খেলে একটি মাত্র ম্যাচে হেরেছে বাংলাদেশ। নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ ১-০ গোলে হারায় শ্রীলংকাকে। দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে দশ জনের দলে পরিণত হয়েও গোল করে শেষ পর্যন্ত ১-১ ব্যবধানে ড্র করার কৃতিত্ব দেখান জামালরা। তবে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে স্বাগতিক মালদ্বীপের কাছে ২-০ গোলে হেরে যায় তারা। যেকারণে নিজেদের শেষ ম্যাচে ফাইনালে খেলার সমীকরণ কঠিন হয়ে যায়। সেই সমীকরণ মেলাতে পারেনি বাংলাদেশ। ফাইনালে খেলার স্বপ্নভঙ্গে হতাশা নিয়েই দেশে ফিরতে হচ্ছে কোচ অস্কার ব্রুজেনের শিষ্যদের।

advertisement