advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

টপ ফোর থেকে মাইনাস ‘তেলিহাওর’ ‘টিলাগড়’

নুরুল হক শিপু,সিলেট
১৪ অক্টোবর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৪ অক্টোবর ২০২১ ১২:৫৩ পিএম
নাসির উদ্দিন খান ও আজাদুর রহমান আজাদ। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

নাসির উদ্দিন খান ও আজাদুর রহমান আজাদ দুজনই সিলেট আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা। নাসির জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আর আজাদ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। দুজনই ছিলেন এককালের তুখোড় ছাত্রলীগ নেতা। একজন ‘তেলিহাওর গ্রুপ’র নিয়ন্ত্রক, অন্যজন ‘টিলাগড় গ্রুপ’র কর্ণধার। সিলেট ছাত্রলীগের রাজনীতিতে এ দুই গ্রুপ বেশি আলোচিত। জেলা ছাত্রলীগের কমিটি এলেই ‘টপ ফোরে’ থাকেন এ দুই গ্রুপের অনুসারীরা। প্রায় দুই যুগ ধরেই ছাত্রলীগের কমিটিতে ছিল এ নেতার অনুসারীদের আধিপত্য। তবে এবার ‘টপ ফোরে’ নেই তাদের কোনো অনুসারী!

অন্যদিকে, সাবেক তিন ছাত্রলীগ নেতা ঠিকই তাদের বলয়ের আধিপত্য ধরে রেখেছেন। বিশেষ করে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলের অনুসারী কিশোয়ার জাহান সৌরভ হয়েছেন মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি। মহানগর আওয়ামী লীগের আরেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বিধান কুমার সাহার ‘কাশ্মীর গ্রুপে’র নাঈম ইসলাম হয়েছেন মহানগর সাধারণ সম্পাদক। জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রণজিৎ সরকার ছিলেন ‘টিলাগড় গ্রুপ’র দুই হর্তাকর্তার একজন। তবে বন্ধু আজাদুর রহমান আজাদের সঙ্গে ছাত্রলীগের গ্রুপিং নিয়ে তার দেখা দিয়েছে দূরত্ব। সেই দূরত্বে এবার আজাদ নিজের বলয়ে ছাত্রলীগের কোনো পদ ধরে রাখতে পারেননি। তবে রণজিৎ সরকারের অনুসারী নাজমুল ইসলাম জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হওয়ায় এ বলয়ে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ।

জেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক রাহেল সিরাজকে নিয়ে দেখা দিয়েছে রহস্য। রাহেল মূলত ‘তেলিহাওর গ্রুপ’র কর্মী। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সদস্য হিসেবেও দায়িত্বে আছেন। সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন খানের নিয়ন্ত্রণেই ‘তেলিহাওর গ্রুপ’ চলে। তবে গত মঙ্গলবার ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণার পরপরই এ বলয়ের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা রাহেলের বাসায় হামলা ও গুলিবর্ষণ করায় দেখা দিয়েছে রহস্য। ছাত্রলীগ নেতারা বলছেন, নাসির উদ্দিন খানের ভাতিজা জাওয়াদকে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক না

করায় এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। জাওয়াদ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগে ঠাঁই পেয়েছেন। অবশ্য কমিটি প্রকাশের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তিনি ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে পদ থেকে অব্যাহতির ঘোষণা দেন। আবার কোনো কোনো ছাত্রলীগ নেতা বলছেন, রাহেল সিরাজ ‘তেলিহাওর বলয়ের’ কেউ নন; তিনি যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অনোয়ারুজ্জামানের অনুসারী। এটি সত্যি হলে নাসির উদ্দিন খানের দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে এই প্রথম সিলেট ছাত্রলীগের ‘টপ ফোর’ থেকে বাদ পড়ল তেলিহাওর গ্রুপ।

সিলেট জেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক রাহেল সিরাজ বলেন, তিনি নাসির উদ্দিন খানের অনুসারী এবং ‘তেলিহাওর গ্রুপ’রই কর্মী। কিন্তু তিনি কিছুতেই বুঝতে পারছেন না সহকর্মীরা কেন তার বাসায় হামলা ও গুলি চালাল? তিনি বলেন, নাসির উদ্দিন খান আমার রাজনৈতিক অভিভাবক। এমন অসংখ্য স্ট্যাটাস আমার ফেসবুক আইডি ঘাটলেই দেখা যাবে।

এ ব্যাপারে সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান বলেন, প্রথমত জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে সমন্বয় না করে কমিটি দেওয়াটা অনুচিত হয়েছে। কারণ দীর্ঘদিন পর কমিটি এসেছে- এমনিতেই নেতাকর্মীরা বিক্ষুব্ধ। এর পর কেন্দ্রের পছন্দ সঠিক ছিল না।

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজাদুর রহমান আজাদ বলেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের বিচক্ষণতার পরিচয় দেওয়া উচিত ছিল। যেহেতু দীর্ঘদিন কমিটি হয়নি, আরা ওযাচাই-বাছাই করে একটি স্বচ্ছ কমিটি দিলে অন্তত ছাত্রলীগে বিদ্রোহ দেখা দিত না।

কোটি টাকার বাণিজ্যের অভিযোগ

সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের নবঘোষিত আংশিক কমিটি বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন পদবঞ্চিত নেতা ও তাদের অনুসারীরা। গতকাল বুধবার বিকালে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আগের জেলা কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার আলম সামাদ। তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক উভয়ে ১ কোটি ২০ লাখ টাকার বিনিময়ে অছাত্র, এমসি কলেজের হোস্টেলে ধর্ষণ মামলার আসামিদের গডফাদার, বিভিন্ন চেক ডিজঅনার মামালার আসামি, বিশেষ করে ফ্রিডম পার্টির নেতার নাতিকে নিয়ে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করায় আমরা সিলেট ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা লজ্জিত, হতাশ ও বিব্রত। আমরা কমিটি ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করছি। এ কমিটি বাতিল না হওয়া পর্যন্ত আজ বৃহস্পতিবার থেকে বিক্ষোভ প্রদর্শন ও অবরোধসহ টানা আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন তিনি।

 

 

 

 

 

advertisement