advertisement
advertisement

সব খবর

advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

কুমিল্লার ঘটনায়ও দোষারোপের রাজনীতি
দুর্বৃত্তদের অবিলম্বে আইনের আওতায় আনুন

১৯ অক্টোবর ২০২১ ১২:০০ এএম
আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০২১ ১১:০৮ পিএম
advertisement

এবার দুর্গপূজাকে কেন্দ্র করে কুমিল্লার ঘটনার পর সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে পূজাম-প, মন্দিরসহ হিন্দুদের বাসাবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলার ঘটনা ঘটে। এসব হামলার ঘটনায় ২৮টি মামলায় অজ্ঞাতসহ ৯ হাজার ৫২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলায় এ পর্যন্ত ২২৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের মধ্যে জামায়াত-বিএনপির কয়েকজন নেতাও রয়েছেন।

বলার অপেক্ষা রাখে না, দেশে কোনো অঘটন ঘটলেই রাজনৈতিক দলগুলোর পরস্পরের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলার ‘প্রতিযোগিতা’ দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে। এবারও তারা নৈতিক দায়িত্ববোধ থেকে সন্ত্রাসীদের প্রতিরোধ করার চেয়ে দুঃখজনকভাবে পরস্পরকে দোষারোপে নেমে পড়েছেন।

দৃশ্যত এ ধরনের হামলা বিভিন্ন স্থানে ও ভিন্ন ভিন্ন ঘটনাকে কেন্দ্র করে হলেও সব ঘটনা কার্যত একই সূত্রে বাঁধা। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকজনকে দুর্বল ভেবে স্বার্থান্বেষী লোকজন সম্পদ দখলসহ নানা কারণে এবং কোনো কোনো মহল রাজনৈতিক কারণে এ ধরনের অপকর্ম ঘটায় ও উসকানি দেয়। আর মাত্র দেড় বছরের মাথায় পরবর্তী সাধারণ নির্বাচন। এ নিয়ে অনেক মহলই এখন থেকে সরকারকে বিপর্যস্ত করতে চায়। চায় ব্যর্থতার দায়ভার দিতে। এতদিন সরকার কঠোর হাতে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রেখেছে। বর্তমান সরকার আসার পর থেকেই দেশে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি এবং জনমনে ভয়ভীতি ও অনাস্থা সৃষ্টির অনেক চেষ্টা হয়েছে। এই বাস্তবতায় আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকা সত্ত্বেও সংখ্যালঘু জনগণ নিরাপদবোধ করে না, স্বস্তিতে জীবনযাপন করতে পারে না। এসব হামলার মাধ্যমে একশ্রেণির অপশক্তি তা বুঝিয়ে দিতে চাইল। আমাদের বুঝতে হবে যে, দেশে অপশক্তি রয়েছে এবং তাদের অপকর্ম করার শক্তিও রয়েছে। এই সংবেদনশীল বিষয়ে সব সময়ই সরকার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সতর্ক থাকতে হবে। সম্প্রতি যে ঘটনাগুলো ঘটেছে, এসবের সঙ্গে জড়িত লোকজনকে আইনের আওতায় এনে যথাযথ শাস্তি নিশ্চিত করা জরুরি। আর যেসব বক্তব্য হিংসা ও বিদ্বেষকে উসকানি দেয়, ধর্মে ধর্মে মানুষকে বিভক্ত ও বিদ্বিষ্ট করে, সেসব প্রচারও অবিলম্বে বন্ধ হওয়া প্রয়োজন। হিংসা ও বিদ্বেষের বদলে মানুষের ভেতরে সম্প্রীতি ও শুভবোধ জাগ্রত হোক।

advertisement
advertisement