advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

ইরাক যুদ্ধের কুশীলব কলিন পাওয়েলের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১৯ অক্টোবর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৯ অক্টোবর ২০২১ ০১:৫৪ এএম
advertisement

করোনায় মারা গেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও ইরাক যুদ্ধের অন্যতম কুশীলব কলিন পাওয়েল। তার পরিবার গতকাল ফেসবুকে এক পোস্টে এ খবর দিয়েছে। তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। ফেসবুক পোস্টে তার পরিবার জানিয়েছে, পাওয়েল করোনা ভাইরাসের পূর্ণ ডোজ টিকা নিয়েছিলেন। কিন্তু আগে থেকেই তিনি ক্যানসার আক্রান্ত ছিলেন। ফলে করোনা ভাইরাসের জটিলতা তাকে আরও জেঁকে বসেছিল।

২০০১ সালে প্রেসিডেন্ট জর্জ ওয়াকার বুশের আমলে পাওয়েল পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হন।

সিএনএন লিখেছে, বিশ শতকের শেষ কটা বছর এবং চলতি শতকের শুরুর বছরগুলোয় কয়েকটি রিপাবলিকান প্রশাসনে তার নেতৃত্ব আমেরিকার পররাষ্ট্র নীতিকে নতুন মাত্রা দিয়েছিল। তিনি একাধিক নেতার সামরিক উপদেষ্টাও ছিলেন।

তবে বিবিসি বলছে, ইরাক যুদ্ধের জন্য সমর্থন আদায়ে তার সোচ্চার অবস্থান নিয়ে বেশ বিতর্ক রয়েছে। এমনকি সিএনএনের প্রতিবেদনে যেমনটা বলা হয়েছে, পাওয়েল

নিজেই পরে স্বীকার করেছেন যে, ওই যুদ্ধের জন্য তিনি জাতিসংঘের দরবারে অবস্তুনিষ্ঠ গোয়েন্দা তথ্য উপস্থাপন করেছিলেন, যা তার রাজনৈতিক জীবনের ‘কলঙ্ক’। এবিসি নিউজকে তিনি ২০০৫ সালে বলেছিলেন, জাতিসংঘে দেওয়া ‘ওই ভাষণ ছিল বেদনাদায়ক, এখনো যা আমাকে কুরে কুরে খায়।’

পাওয়েলের মৃত্যুতে বুশ শোকবার্তায় বলেছেন, ‘তিনি প্রেসিডেন্টের এতই পছন্দের নেতা ছিলেন যে প্রেসিডেনশিয়াল মেডাল অব ফ্রিডম পেয়েছেন দুবার।’

এ ছাড়া পাওয়েলের সঙ্গে কাজ করা সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ার শোক জানিয়েছেন।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, পাওয়েল ভিয়েতনাম যুদ্ধে সরাসরি অংশ নিয়েছেন। সে সময় তিনি আহতও হন। ওই ঘটনাই ছিল তার ভবিষ্যৎ রাজনৈতিক কৌশলের নেপথ্যের কারণ।

সংস্কারবাদী এ নেতা রিপাবলিকান দলের সঙ্গে বিচ্ছেদ ঘটিয়ে ২০০৮ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট বারাক ওবামাকে সমর্থন জানিয়েছিলেন। পাওয়েলের জন্ম ১৯৩৭ সালে।

advertisement
advertisement