advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

বড় জয়ে বিশ্বকাপের মূল মঞ্চের দিকে এগিয়ে গেল শ্রীলঙ্কা

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২০ অক্টোবর ২০২১ ১১:৩৭ পিএম | আপডেট: ২০ অক্টোবর ২০২১ ১১:৩৭ পিএম
ছবি : টুইটার
advertisement

ব্যাট হাতে শ্রীলঙ্কাকে বড় পুঁজি গড়ে দেন ভানিন্দু হাসারাঙ্গার। বল হাতেই দুর্দান্ত খেলেছেন তিনি। চার ওভারে মাত্র ১২ রান দিয়ে নেন এক উইকেট। তার অলরাউন্ড নৈপুণ্যতার দিনে আয়ারল্যান্ডকে ৭০ রানে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল পর্বে এক পা দিয়ে রাখলো লঙ্কানরা। আজ বুধবার আবুধাবিতে টসে হেরে নির্ধারিত ওভারে সাত উইকেট হারিয়ে ১৭১ রান তোলে শ্রীলঙ্কা। জবাবে ৯ বল বাকি থাকতেই ১০১ রানে গুটিয়ে যায় আইরিশরা।

বড় লক্ষ্য তাড়ায় শুরুটা ভালো হয়নি আয়ারল্যান্ডের। মাত্র ১৮ রান তুলতেই ফেরেন দুই ওপেনার পল স্টারলিং ও কেভিন ও'ব্রায়েন। পাওয়ার প্লে শেষ হতেই আরও একটি উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে আইরিশরা। তৃতীয় উইকেটের জুটিতে অধিনায়ক অ্যান্ড্রু ব্যালবার্নির সঙ্গে ৫৩ রানের জুটি গড়ে প্রতিরোধ তৈরি করেন কার্টিস কাম্পার। ২৮ বলে ২৪ রান করা এই ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে শ্রীলঙ্কাকে স্বস্তি এনে দেন থিকশানা।

৯৪ রানের মাথায় অ্যান্ড্রু ব্যালবার্নি সাজঘরে ফেরান লাহিরু কুমারা। ৩৯ বলে ৪১ করা এই ব্যাটসম্যানের বিদায়ের পর আর কেউই দুই অংক ছুঁতে পারেনি। ১০১ রানে থাকে আইরিশরা। ৭০ রানের বড় জয়ে বিশ্বকাপের মূল পর্বে এক পা দিয়ে রাখলো লঙ্কানরা।

এর আগে. টসে হেরে ব্যাট করতে এসে শুরুতে হোঁচট খায় শ্রীলঙ্কা। প্রথম ওভারে ওপেনার কুশল পেরেরাকে গোল্ডেন ডাকে ফেরান পল স্টারলিং। ওভারের দ্বিতীয় বলে গ্যারেথ ডিলানির দুর্দান্ত তালুবন্দিতে ফেরেন তিনি। তিনে আসা দীনেশ চান্দিমাল (৬) আজও ব্যর্থ হন। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে তৃতীয় বলে জশুয়া লিটলের শিকার হন তিনি। একই ওভারের পরের বলে নতুন ব্যাটসম্যান আভিশকা ফার্নান্দোকে বোল্ড করেন এই পেসার।

মাত্র নয় রানে তিন উইকেট হারানোর পর ওপেনার পাথুম নিসাঙ্কা ও ভানিন্দু হাসারাঙ্গার ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ায় লঙ্কানরা। পাওয়ার প্লেতেই ৪৭ তোলে তারা। এই যুগলের জুটিতে দারুণ প্রতিরোধ গড়ে বড় সংগ্রহের দিকে এগোতে থাকে লঙ্কানরা। ১২২ রানের দুর্দান্ত এই পার্টনারশিপ ভাঙেন মার্ক এডায়ার। ৪৭ বলে ৭১ রানের ইনিংস খেলে ফেরেন হাসারাঙ্গা।

দীর্ঘ সময় এক পাশ আগলে রাখা ওপেনার নিসাঙ্কাকে সাজঘরে ফেরান জশুয়া লিটন। দলীয় ১৫৭ রানের ফেরার আগে ৪৭ বলে ৬১ রানের কার্যকরী ইনিংস খেলেন তিনি। শেষের দিকে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পড়তে থাকে। শুরুতে স্কোর যতটা বড় হবে ধারনা করা হচ্ছিল তা আর হয়নি। নির্ধারিত ওভারে সাত উইকেট হারিয়ে ১৭১ রান তোলে লঙ্কানরা।

advertisement
advertisement