advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

বিএনপির সাবেক এমপি মোমিনের মৃত্যুদণ্ড

মানবতাবিরোধী অপরাধ

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৫ নভেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৫ নভেম্বর ২০২১ ০২:৩৮ এএম
advertisement

মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল মোমিন তালুকদার খোকার ফাঁসির রায় দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বাধীন তিন বিচারকের ট্রাইব্যুনালে গতকাল বুধবার এ মামলার রায় ঘোষণা করেন। পলাতক মোমিন তালুকদারের বিরুদ্ধে আনা তিনটি অভিযোগেই তাকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে হলে তাকে আত্মসমর্পণ করতে হবে। ট্রাইব্যুনালের এটি ৪৩তম রায়।

প্রসিকিউটর সুলতান মাহমুদ সীমন সাংবাদিকদের বলেন, গণহত্যার অভিযোগসহ তিনটি অভিযোগই আমরা রাষ্ট্রপক্ষ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি বলে ট্রাইব্যুনাল তাকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন। আসামির পক্ষে রাষ্ট্র নিযুক্ত আইনজীবী আবুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, মোমিন তালুকদার যদি আত্মসমর্পণ করে এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন, আমি মনে করি তিনি খালাস পাবেন।

মোমিন তালুকদারের বয়স এখন ৬৯ বছর। তার বাবা আবদুল মজিদ তালুকদার ছিলেন আদমদীঘি থানা মুসলিম লীগের সভাপতি। ১৯৭১ সালে মজিদ তালুকদার আদমদীঘি থানায় শান্তি কমিটি করে এর চেয়ারম্যান হন। মোমিনও একাত্তরে মুসলিম লীগের সক্রিয় কর্মী ছিলেন। মজিদ তালুকদার স্থানীয় পর্যায়ে রাজাকার বাহিনী গঠন করলে তার ছেলে মোমিনই প্রথম তাতে যোগ দেন এবং থানা কমান্ডারের দায়িত্ব নেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতায় বগুড়া ও আদমদীঘিতে তিনি যেসব মানবতাবিরোধী অপরাধ ঘটান, তার বিবরণ উঠে এসেছে এ মামলার শুনানিতে।

১৯৭৯ সালে বিএনপিতে যোগ দিয়ে মজিদ তালুকদার ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালে দুই দফা এমপি হন। বাবার এক বছর আগে ১৯৭৮ সালে বিএনপিতে যোগ দেন মোমিন তালুকদার। পরে আদমদীঘি উপজেলা বিএনপির সভাপতি হন। তিনি ২০০১ ও ২০০৮ সালে বিএনপি থেকে এমপি হন। সেই সময় তিনি বগুড়া জেলা বিএনপির সহসভাপতি এবং রাজশাহী বিভাগীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছিলেন। আদমদীঘি থানার বীর মুক্তিযোদ্ধা সুবেদ আলী ২০১১ সালের আগস্টে তার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের মামলা করেন। মোমিন তখনো বগুড়া-৩ (আদমদীঘি-দুপচাঁচিয়া) আসনের এমপি। ২০১৯ সালের ১১ এপ্রিলে ট্রাইব্যুনালে তার বিচার শুরু হয়।

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া জানান, রায় ঘোষণার পর দুপুরে বগুড়া শহরের সাতমাথায় মুজিব মঞ্চের সামনে মিষ্টি বিতরণ করেন বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগ নেতারা। এদিকে রায়ের প্রতিক্রিয়া জানতে দণ্ডপ্রাপ্ত মোমিনের ছোট ভাই আদমদীঘি উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আবদুল মহিত তালুকদারের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করব কিনা সে ব্যাপারে পারিবারিকভাবে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এর বাইরে কিছু বলতে তিনি রাজি হননি।

advertisement
advertisement