advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

এবার ময়লার ট্রাকে প্রাণ গেল সংবাদকর্মীর

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৬ নভেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৬ নভেম্বর ২০২১ ০২:৩৩ এএম
advertisement

নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় চলমান আন্দোলনের মধ্যেই সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় রাজধানীতে আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার পান্থপথে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ময়লার গাড়ির ধাক্কায় আহসান কবির খান (৫০) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। তিনি একটি জাতীয় দৈনিকে ‘গ্রাফিক্স ডিজাইনার’ হিসেবে চাকরি করতেন।

কলাবাগান থানার ওসি (তদন্ত) আ ফ ম আসাদুজ্জামান জানান, কবির খান রাইড শেয়ারিং কোম্পানি ‘পাঠাও’-এর মোটরসাইকেলে করে পান্থপথের দিকে যাচ্ছিলেন। দুপুর আড়াইটার দিকে বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্সের উল্টো দিকে ‘শাপলা ফার্নিচারের’ সামনে ডিএনসিসির ময়লার ট্রাক পেছন থেকে মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। এতে কবির খান নিচে পড়ে যান। এর পর ট্রাকের চাকা তার মাথার ওপর দিয়ে চলে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। ওসি আরও জানান, ঘটনার পর মোটরসাইকেলের চালক দ্রুত পালিয়ে যায়। ময়লার গাড়িটি জব্দ করা হয়েছে। তবে চালক পলাতক।

ডিএনসিসি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ইতোমধ্যে ডিএনসিসির

প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা কমোডর এসএম শরিফ-উল ইসলামের নেতৃত্বে চার সদস্যের কমিটি করা হয়েছে। এ ছাড়া নিহতের পরিবারের কোনো সহযোগিতার প্রয়োজন হলে তা করা হবে।

নিহতের মামাতো ভাই মিজানুর রহমান জানান, কবির খানের বাড়ি ঝালকাঠি সদর উপজেলার শেরজুত গ্রামে। এক ছেলে এক মেয়েসহ স্ত্রী নাদিরা পারভিন রেখাকে নিয়ে বড় মগবাজার সোনালীবাগ চান বেকারি গলির ৫৩ নম্বর বাসায় থাকতেন তিনি। ছেলে সাদবান শাহরিয়ার কাইফ ৯ম শ্রেণিতে ও মেয়ে সাফরিন কবির দিয়া ৪র্থ শ্রেণিতে পড়ে।

নিহতের স্ত্রী নাদিরা পারভিন বলেন, কবির বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বাসা থেকে বের হন। দুপুরের দিকে খবর আসে যে কবিরকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। পরে হাসপাতালে গিয়ে কবিরকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার গুলিস্তানে ডিএসসিসি ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান নিহত হন। এ নিয়ে রাজধানী বিভিন্ন জায়গায় আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা।

advertisement
advertisement