advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

বন্দিশালায় নয় দীপ্তির উচিত কলেজে থাকা -অ্যামনেস্টি

আমাদের সময় ডেস্ক
২৬ নভেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৬ নভেম্বর ২০২১ ০২:৩৩ এএম
advertisement

ফেসবুক পোস্টে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার কলেজছাত্রী দীপ্তি রানীর নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। গতকাল বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এ বিষয়ে জরুরি পদক্ষেপ নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি। অ্যামনেস্টির দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ক্যাম্পেইনার সাদ হামাদি বলেন, কেবল ফেসবুক পোস্টের কারণে একটি শিশুর বিকাশের সময়ে তাকে সাজা দিয়ে আটকে রাখায় উদ্বিগ্ন না হয়ে উপায় নেই। ডিজিটাল নিরাপত্তা

আইনের মতো নিবর্তনমূলক আইন কাউকে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করে তুলতে কতটা কার্যকর, এখানে সেটাই দেখা যাচ্ছে। নিরাপত্তা না দিয়ে, কিশোর বয়সী একটি মেয়েকে এক বছরের বেশি সময় ধরে সংশোধন কেন্দ্রে দুর্ভোগে রাখা হয়েছে। দীপ্তি রানীর এখন স্কুলে থাকা উচিত, বন্দিশালায় নয়।

ফেসবুকে দেওয়া একটি ছবিতে ‘কোরআন অবমাননা’র অভিযোগে গত বছরের ২৮ আগস্ট দিনাজপুরের পার্বতীপুরের ১৭ বছর বয়সী দীপ্তিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এর পর থেকে সে রাজশাহীর একটি সংশোধন কেন্দ্রে আছে।

অ্যামনেস্টির বিবৃতিতে বলা হয়, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের ‘মিথ্যা’ অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হলে দীপ্তির সাত বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। গত বছর আগস্টে দীপ্তি পার্বতীপুর সরকারি কলেজে মানবিক শাখায় ভর্তি হয়েছিল। বিজ্ঞান বিভাগে পড়তে চাইলেও পরিবারের আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে তা হয়নি। দীপ্তি ছবি আঁকতে এবং গল্প লিখতে ভালোবাসে। গ্রেপ্তারের পর থেকে সে পড়ালেখা চালিয়ে যেতে পারছে না।

advertisement
advertisement