advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement

তৃতীয় ধাপের ইউপি ভোট কাল

১০০ চেয়ারম্যান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৭ নভেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৭ নভেম্বর ২০২১ ০৮:০১ এএম
প্রতীকী ছবি
advertisement

নির্বাচনী সহিংসতার মধ্যে সারাদেশে তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ আগামীকাল রবিবার। আগের দুই ধাপের নির্বাচনে সহিংসতা হওয়ায় এবার আগাম সতর্কতায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করেছে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা বলেছেন, আগামী নির্বাচনে সহিংসতা রোধে আপ্রাণ চেষ্টা করা হচ্ছে। এ লক্ষ্যে আগাম গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও নজরদারি বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছি। অনেকে গ্রেপ্তার হয়েছে। আরও অনেককে গ্রেপ্তারের তৎপরতা চলছে। এলাকার মস্তান, যারা বিশৃঙ্খলা করতে পারে তাদের আগাম গ্রেপ্তারের জন্য নির্দেশনা দিয়েছি।

ইসির যুগ্ম সচিব ও পরিচালক (জনসংযোগ) এসএম আসাদুজ্জামান জানান, তৃতীয় ধাপের এক হাজার ইউপিতে রবিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে। এ ধাপে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ৫৬৯ জন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত ১০০ জন, সংরক্ষিত সদস্য ১৩২, সাধারণ আসনের সদস্য ৩৩৭ জন বিনা ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। এ ধাপে সারাদেশে ৫০ হাজার ১৪৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এদিকে আজ শনিবার ইউপি নির্বাচনের পঞ্চম ধাপের তফসিল ঘোষণা করবে ইসি। বেলা সাড়ে ১১টায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠেয় বৈঠকে অন্য কমিশনারসহ ইসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। বৈঠকের পর পঞ্চম ধাপের ইউপি ভোটের তফসিল ঘোষণা করা হবে বলে ইসি সূত্র জানিয়েছে। বৈঠকে কয়েকটি পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন ও নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনসহ অন্যান্য স্থানীয় নির্বাচন নিয়েও আলোচনা হবে।

আগের তিন ধাপে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের চিত্র

তৃতীয় ধাপে ৫৬৯ প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ১০০, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১৩২ এবং সাধারণ সদস্য পদে ৩৩৭ জন রয়েছেন।

দ্বিতীয় ধাপে ৩৬০ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৮১, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৭৬ ও সাধারণ সদস্য পদে ২০৩ জন রয়েছেন।

প্রথম ধাপে ১৩৮ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৬৯, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৬ জন ও ৬৩ জন সাধারণ সদস্য পদে রয়েছেন।

ইতোমধ্যে চার ধাপে ইউপি ভোটের তফসিল ঘোষণা করেছে ইসি। প্রথম ধাপে ৩৬৯ এবং দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৩টি ইউপিতে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। তৃতীয় ধাপে এক হাজার ইউপিতে রবিবার এবং চতুর্থ ধাপে ৮৪৩ ইউপিতে ২৬ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। পঞ্চম ধাপের তফসিল আজ ঘোষণা করা হবে।

ইউপি ভোট চতুর্থ ধাপেও স্বতন্ত্র প্রার্থীর ছড়াছড়ি ডিসেম্বরের শেষভাগ অনুষ্ঠিতব্য ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও স্বতন্ত্র (অধিকাংশ আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী) প্রার্থীর ছড়াছড়ি। দলীয় প্রতীকের এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ১৭টি দল অংশ নিচ্ছে। ৮৪০ ইউপির মধ্যে আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী রয়েছেন ৮০৯ ইউপিতে। চেয়ারম্যানর পদে দলীয় প্রার্থী রয়েছেন ১ হাজার ৩৭২ জন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন ৩ হাজার ৫৪৬ জন। এই হিসাবে প্রতি ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে গড়ে পাঁচজনের বেশি করে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ধাপের মনোনয়নপত্র জমার শেষ সময় ছিল বৃহস্পতিবার। গতকাল শুক্রবার মাঠপর্যায়ের একীভূত তথ্য পর্যালোচনায় এ খবর মেলে।

নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিব এসএম আসাদুজ্জামান জানান, চতুর্থ ধাপের ৮৪০ ইউপিতে চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে সাড়ে ৪৬ হাজার প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। চেয়ারম্যান পদে ৪ হাজার ৯১৮, সাধারণ সদস্য পদে ৩১ হাজার ৭০৪ ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৯ হাজার ৮৫০ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন।

তিনি আরও জানান, চেয়ারম্যান পদে ১৩ জন একক প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে ক্ষমতাসীন দলের ১২ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন একজন।

জানা গেছে, আড়াইহাজারের ফতেপুর, দুপ্তারা, ব্রাহ্মন্দী, মাহমুদপুর; লৌহজংয়ের মেদিনীমণ্ডল; কামারখন্দের ঝাঐল; সিংড়ার শেরকোল; পটিয়ার বড়লিয়া; লোহাগাড়ার বড়হাতিয়া; রাজবাড়ীর বানীবহ ও কোটালীপাড়ার আমতলী এবং কুমিল্লার শ্রীপুরের আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই। আর কুমিল্লার পাঁচমুখীতে কেবল একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন। বাছাইয়ে বৈধ প্রার্থী হলে তারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচন হবেন। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সময় শেষে একক প্রার্থীর সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

চতুর্থ ধাপে ৩৩ ইউনিয়ন পরিষদে ইভিএমে ভোট নেওয়া হবে। বাকিগুলোয় ভোট হবে প্রচলিত ব্যালট পেপারে। তফসিল অনুযায়ী, ২৯ নভেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের পর ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রত্যাহার করা যাবে। ভোটগ্রহণ ২৬ ডিসেম্বর।