advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আড়াইহাজার
বিএনপি-ছাত্রলীগ সংঘর্ষ গুলিবিদ্ধ ৩ জন

সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি
৩০ নভেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ৩০ নভেম্বর ২০২১ ০২:০৬ এএম
advertisement

আড়াইহাজারে বিএনপি ও ছাত্রলীগকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। রবিবার রাতে আড়াইহাজার বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ লাঠিচার্জ ও গুলি ছুড়লে ছাত্রলীগের তিন কর্মী গুলিবিদ্ধ হন বলে জানা যায়। তিনজন গুলিবিদ্ধ হওয়ার বিষয়টি পুলিশের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে আটকও করা হয়েছে।

advertisement 3

বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন অনুর বাড়ি ও তার মালিকানাধীন মার্কেটে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা হামলা চালান। তারা আনোয়ার হোসেন অনুর স্ত্রী মহিলা দল ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক পারভীন আক্তারের ওপরও হামলা চালান। এ ছাড়া অনুর ছোট ভাই রফিকুল ইসলামকেও কুপিয়ে জখম করা হয়।

advertisement 4

গত রবিবার রাতে আড়াইহাজার থানায় একটি অভিযোগ করেন আনোয়ার হোসেন অনু। এতে উল্লেখ করা হয়, রবিবার বিকালে আড়াইহাজার সরকারি সফর আলী কলেজ

ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইমতিয়াজ আহম্মেদ শাওনের নেতৃত্বে ৫-৬ জন আগ্নেয়াস্ত্র ও ধারালো অস্ত্রের মুখে তার ছোট ভাই রফিকুলের পথরোধ করে এবং তাকে বেধড়ক মারধর করে সঙ্গে থাকা ৭ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেন। এর পর রাতেই আড়াইহাজার বাজারে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। এ সময় ছাত্রলীগ নেতা ইমতিয়াজ হোসেন শাওনের নেতৃত্বে একদল নেতাকর্মী অনুর বাসভবন ও মার্কেটে হামলা চালান। বাধা দিতে গেলে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা অনু ও তার স্ত্রীর ওপর হামলা চালান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তবে স্বল্পসংখ্যক পুলিশ শত শত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে নিবৃত করতে লাঠিচার্জ ও গুলি ছুড়ে। ওই সময় গুলিতে তিন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী গুলিবিদ্ধ হন। গুলিবিদ্ধরা হলেন- মো. রাসেল, রায়হান ও হাকিম মিয়া। তাদের বাড়ি ওই এলাকায়।

রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আরিফ ভূঁইয়া বলেন, গুলিবিদ্ধ তিনজনকে হাসপাতালে আনা হলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। তাদের অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। এ কারণে দ্রুত পাঠানো হয়। সেখানে তাদের ভর্তি করা হয়েছে।

মার্কেটের দোকানি আল আমিন মিয়া জানান, পুলিশ গুলি না ছুড়লে সেখানে নিশ্চিত হত্যাকা- ঘটত। হামলার শিকার বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন অনু বলেন, আমার স্ত্রী ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়েছে। ভাই রফিকের অবস্থা ভালো না। এর মধ্যে শুনলাম আমাদের বিরুদ্ধে উল্টো মামলা নেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে ছাত্রলীগ নেতা ইমতিয়াজ আহম্মেদের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে সাড়া দেননি তিনি। ফলে তার বক্তব্য নেওয়া যায়নি।

আড়াইহাজার থানার ওসি আনিসুর রহমান মোল্লা জানান, আনোয়ার হোসেন অনুর ছোট ভাই রফিকুলের সঙ্গে পূর্বশত্রুতার জের ধরে বিকালে ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মী তাকে মারধর করেছে বলে শুনেছি। ওই ঘটনার রেশ ধরে রাতে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির সূত্রপাত। ওই সময় তিন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে শুনেছি। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে আটক করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ জায়েদুল আলম জানান, এ ঘটনায় মোট তিনটি মামলা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ গুলি ছুড়তে বাধ্য হয়েছে। বাজার এলাকায় অন্ধকার ছিল। কারা আহত হয়েছে তা খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

advertisement