advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

দুই ভাগ হয়ে গেল গণফোরাম

একাংশের সভাপতি মন্টু ও সম্পাদক সুব্রত

নিজস্ব প্রতিবেদক
৩ ডিসেম্বর ২০২১ ০৮:০০ পিএম | আপডেট: ৩ ডিসেম্বর ২০২১ ০৮:১৪ পিএম
শুক্রবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে গণফোরামের ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠানে অতিথিরা- ছবি : সংগৃহীত
advertisement

চূড়ান্তভাবে দুই ভাগ হয়ে গেল গণফোরাম। আজ শুক্রবার ফোরামের একাংশের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এতে সভাপতি হয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফা মোহসীন মন্টু এবং সাধারণ সম্পাদক জ্যেষ্ঠ আইনজীবী সুব্রত চৌধুরী।

রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে গণফোরাম নেতা মোস্তফা মোহসীনের নেতৃত্বাধীন গণফোরামের ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে ১৫৭ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। কাউন্সিল উপলক্ষে শুভেচ্ছাবার্তা পাঠিয়েছেন ড. কামাল হোসেন।

উদ্বোধনী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন ফজলুল হক সরকার। অধিবেশনে উত্থাপিত সাংগঠনিক প্রস্তাব, রাজনৈতিক প্রস্তাব ও অর্থবিষয়ক প্রস্তাবের ওপর বিভিন্ন জেলা এবং উপজেলার নেতারা আলোচনা করেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে গঠিত হওয়া জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা এই কাউন্সিলে উপস্থিত হয়েছিলেন। গণফোরামের এই অংশকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য দেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মনিরুল হক চৌধুরী ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আহ্বায়ক আবদুস সালাম, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক চৌধুরী, অধ্যাপক দিলারা বেগম, জাসদ একাংশের নেতা নাজমুল হক প্রধান, জেএসডি নেতা তানিয়া রব ও বিকল্পধারার একাংশের নেতা বাদল।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর থেকে গণফোরামে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব শুরু হয়। দলের সভাপতি ড. কামাল হোসেন আওয়ামী লীগের সাবেক অর্থমন্ত্রী প্রয়াত শাহ এ এম এস কিবরিয়ার ছেলে রেজা কিবরিয়াকে সাধারণ সম্পাদকের পদে বসান। এর পর থেকে সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীনসহ দলের কিছু জ্যেষ্ঠ নেতার সঙ্গে রেজা কিবরিয়ার দ্বন্দ্ব শুরু হয়।

 

advertisement
advertisement