advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement

প্রতিপক্ষকে নৌকার প্রার্থী
সময় থাকতে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন

নিজস্ব প্রতিবেদক, লক্ষ্মীপুর
৪ ডিসেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ৪ ডিসেম্বর ২০২১ ০৩:০৫ এএম
advertisement

সময় আছে, মনোনয়ন প্রত্যাহার করুন। অযথা টাকা খরচ করবেন না। আমারও ২০/২৫ লাখ টাকা খরচ করাবেন না। নির্বাচন কেমনে করতে হয়, সেটা আমি জানি। সাধারণ মানুষ ভোট দিলেও চেয়ারম্যান, না দিলেও চেয়ারম্যান। তাই আবারও বলছি। সময় থাকতে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। ভালো হবে। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান হতে চাই। প্রতিপক্ষ প্রার্থীদের প্রকাশ্যে সভা-সমাবেশে এভাবেই হুমকি দিয়েছেন চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চররমনী মোহন ইউনিয়ন পরিষদে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু ইউসুফ ছৈয়াল। গত বুধবার রাতে ইউনিয়নের মজুচৌধুরীর হাট পূর্ব বাজারে নির্বাচনী এক সভায় তিনি প্রতিপক্ষ ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী সালেহ আহম্মদকে উদ্দেশ্য করে এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। প্রকাশ্যে ওই প্রার্থীর নাম উচ্চারণ করে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি। অনুষ্ঠানের একটি ভিডিও ফুটেজে এ ধরনের কথা বলতে দেখা যায় চেয়ারম্যান ছৈয়ালকে। সভায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাতেও মজুচৌধুরীরহাটের বিভিন্ন স্থানে নির্বাচনী সভায় একই ধরনের কথা বলেন এই প্রার্থী।

এ ব্যাপারে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ লক্ষ্মীপুর জেলা শাখার সভাপতি অনারারি ক্যাপ্টেন (অব) মো. ইব্রাহিম বলেন, নির্বাচন থেকে সরে যেতে নৌকার প্রার্থী শুধু প্রকাশ্যে নয়, বিভিন্ন মাধ্যমে আমাদেরকে হুমকি দিচ্ছেন। তারা খালি মাঠে গোল দিতে চায়।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে চেয়ারম্যান

আবু ইউসুফ ছৈয়াল বলেন, নির্বাচনের নামে টাকা অপচয় করে লাভ কি? আমার ১৫-২০ লাখ টাকা খরচ হবে। তাই বলেছি টাকাগুলো খরচ করে লাভ কি। আমি দুইবার জয়ী হয়েছি। আগেও আমার সঙ্গে বিএনপি এবং দলের বিদ্রোহী প্রার্থী ছিল। কিন্তু নৌকা বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছে।

রিটার্নিং অফিস সূত্রে জানা গেছে, চররমনী মোহন ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৫ জন মনোননয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগের আবু ইউসুফ ছৈয়াল, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. সালেহ আহম্মেদ, স্বতন্ত্র ছায়েদুর রহমান খলিফা, মো. মনিরুল ইসলাম ও মো. আব্দুল কাদের। আগামী ৬ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। ৭ ডিসেম্বর প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। ভোটগ্রহণ করা হবে আগামী ২৬ ডিসেম্বর।

রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা দেবেশ কুমার সিংহ বলেন, প্রতীক বরাদ্দের আগে এক প্রার্থী আরেক প্রার্থীকে নির্বাচন থেকে সরে যেতে বলতে পারেন না। এটি আচরণ বিধি লঙ্ঘনের মধ্যে পড়ে। কোনো প্রার্থী তথ্য-প্রমাণ সহকারে লিখিত অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ ছৈয়াল ও তার ভাতিজাদের বিরুদ্ধে একাধিক হত্যা ও চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে। সর্বশেষ গত ১৬ জুন আব্দুস সহিদ নামে এক জেলেকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে আবু ইউসুফ ছৈয়াল ও তার ছেলে আবু সুফিয়ানসহ ১৩ জনের নামে সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়। এছাড়া চুরির অপবাদ দিয়ে ইউসুফ ছৈয়ালের নির্দেশে আমির হোসেন নামে এক কৃষককে গাছে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে।