advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

নিখোঁজের ২ দিন পর মিলল ঢাবি শিক্ষকের লাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার ও গাজীপুর প্রতিনিধি
১৫ জানুয়ারি ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৫ জানুয়ারি ২০২২ ০৩:২০ এএম
advertisement

নিখোঁজের দুই দিন পর সাভারের আশুলিয়া থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক সাইদা খালেকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকালে কাশিমপুরের পানিশাইল এলাকা থেকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করেছে। ধারণা করা হচ্ছে, বাড়ি নির্মাণ নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরে তাকে হত্যা করা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. নিজামুল হক ভূঁইয়া বলেন, অবসরের পর আশুলিয়ার জিরানিবাজার এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন অধ্যাপক সাইদা খালেক। সেখানে তার নতুন বাড়ি নির্মাণের কাজ চলছিল। বাড়ি নির্মাণ বাবদ কয়েকজন তার কাছে টাকাপয়সা দাবি করেছিল। এ নিয়ে তাদের সঙ্গে সম্ভবত সাইদা খালেকের মনোমানিল্য হয়েছিল।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, ‘সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের আটক করে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করছে। এর মধ্যে একজন ঘটনার দায় স্বীকার করেছে বলে আমরা জানতে পেরেছি।’

নিহতের স্বজনরা জানান, বুধবার রাতে সাইদার বাড়ি নির্মাণের ঠিকাদার আনোয়ার তার ছেলের মোবাইলে ফোন করে জানান যে বাসার দরোজা খোলা এবং অধ্যাপককে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। রাতেই সাইদার মেয়ে সাদিয়া আফরিন কাশিমপুর থানায় জিডি করেন। পুলিশ

ঘটনার তদন্তে নেমে গাইবান্ধা থেকে আনারুল ইসলাম নামে একজনকে আটক করে। পরে তার তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল সকালে গাজীপুরের পানিশাইল এলাকায় সাইদার ভাড়া বাসার অদূরে তার লাশ পাওয়া যায়।

নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, স্বর্ণালঙ্কার ও টাকা পয়সার লোভে শ্রমিকদের কেউ অধ্যাপক সাইদাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে।

কাশিমপুর থানার ওসি মাহবুবে খোদা জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সাইদা খালেকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি কাশিমপুরের পানিশাইলের যে বাসায় ভাড়া থাকতেন, সেখান থেকে আনুমানিক ২০০ গজ দূরে লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় এক দিনমজুরকে আটক করা হয়েছে জানিয়ে ওসি বলেন, ‘আটক ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত জানানো হবে।’

advertisement
advertisement