advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি
১৫ জানুয়ারি ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৫ জানুয়ারি ২০২২ ০৩:২২ এএম
advertisement

প্রাণ বাঁচাতে দৌড়ে পালাতে চেয়েছিলেন নয়ন শেখ নামে এক যুবক। নিজেকে রক্ষা করতে লাফ দেন পুকুরে। এতেও রক্ষা হয়নি। পুকুরের পানিতে ফেলে নৃশংসভাবে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক যুবলীগ নেতা ও তার লোকদের বিরুদ্ধে। নির্মম এ হত্যাকা- ঘটে বৃহস্পতিবার রাত দশটার দিকে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ বাজারে। হত্যাকা-ের অভিযোগ উঠছে স্থানীয় যুবলীগ নেতা খায়রুল মীর ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে। নিহত ছাত্রলীগ নেতা নয়ন শেখ (৩০) উপজেলার বেলদিয়া গ্রামের মৃত আবদুল শেখের ছেলে। নয়ন শেখ কাওরাইদ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী ছিলেন। হত্যাকা-ের খবর পেয়ে শ্রীপুর থানাপুলিশ রাত পৌনে এগারোটার দিকে কাওরাইদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ অফিসের পেছনের রেলওয়ের পুকুর থেকে নয়নের মরদেহ উদ্ধার করে।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)

খোন্দকার ইমাম হোসেন বলেন, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। নয়নের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দিন আহম্মেদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রক্রিয়া চলছে। অভিযুক্তদের ধরতে পুলিশের একাধিক দল কাজ করছে।

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার বিকালে কাওরাইদ কেএন উচ বিদ্যালয় মাঠে ক্রিকেট খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলায় দুই পক্ষের খেলোয়াড়দের মধ্যে হাতাহাতি হয়।

খেলোয়াড়রা বিষয়টি মীমাংসার জন্য নয়ন শেখকে জানান। নয়ন শেখ কাওরাইদ ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা খায়রুল মীরের ছেলে অনুভবকে (১৪) ডেকে কাওরাইদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ অফিসে নিয়ে মারধর করেন। অনুভব মারধরের ঘটনা বাড়িতে গিয়ে তার বাবাকে জানায়।

খায়রুল মীর ও তার সহযোগীরা আওয়ামী লীগ অফিসে গিয়ে অনুভবকে মারধরের কথা জিজ্ঞাসা করেন। এ সময় দুপক্ষের বাগ্বিত-া ও ধাক্কাধাক্কি হয়।

নয়ন শেখের ভাই রতন শেখ জানান, ওই ঘটনার জের ধরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর কাওরাইদ বাজারে দেশি অস্ত্র হাতে মহড়া দেন খায়রুল মীরের সমর্থকরা। এতে বাজারের ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। অনেকেই আতঙ্কে দোকান বন্ধ করে ফেলেন।

রাত সাড়ে আটটার দিকে নয়ন শেখকে কাওরাইদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে প্রায় এক ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখে খায়রুল মীর ও তার সহযোগীরা। এক পর্যায়ে নয়ন শেখের ওপর হামলা চালায় তারা।

রতন শেখ আরও বলেন, এ সময় দৌড়ে পালিয়ে প্রাণে বাঁচার চেষ্টা করে নয়ন। তাকে ধাওয়া করে খায়রুল মীরের লোকজন। আওয়ামী লীগ অফিসের পাশে রেলওয়ের পুকুরে পড়ে যায় নয়ন। পুকুরে পানিতে ফেলে হামলাকারীরা নৃশংসভাবে পিটিয়ে হত্যা করে নয়নকে।

advertisement
advertisement