advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement

হত্যার উদ্দেশ্যে বাসায় যান খুনি, নিচের দোকান থেকে কেনেন ছুরি : আদালত

অনলাইন ডেস্ক
১৮ জানুয়ারি ২০২২ ০১:১৬ এএম | আপডেট: ১৮ জানুয়ারি ২০২২ ০১:১৬ এএম
আহমেদ ওয়াক্কাস গোরাইয়া। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

নেদারল্যান্ডসে নির্বাসিত পাকিস্তানি ব্লগার আহমেদ ওয়াক্কাস গোরাইয়া হত্যাচেষ্টার মামলার বিচারিক কার্যক্রম যুক্তরাজ্যের একটি আদালতে চলমান। যার সন্দেহভাজন আসামি ব্রিটিশ নাগরিক মোহাম্মদ জহির খান। যিনি নেদারল্যান্ডসের রোটারড্যাম গিয়ে গোরাইয়াকে হত্যার চেষ্টা চালান। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হন তিনি।

সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গত শনিবার যুক্তরাজ্যের একটি আদালতে দ্বিতীয় দিনের মতো ওই মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। আদালত জানান, কে বা কারা জহির খানকে টাকার বিনিময়ে ভাড়া করেন। তিনি যুক্তরাজ্য থেকে নেদারল্যান্ডসে যেয়ে ওয়াক্কাসকে হত্যার চেষ্টা চালান৷ এ জন্য ওয়াক্কাসের ঠিকানা এবং বৃত্তান্ত পাকিস্তানের এক মধ্যস্থতাকারীর মাধ্যমে সংগ্রহ করেন তিনি।

ডন আরও জানিয়েছে, হত্যার পরিকল্পনাকারী জহির খান প্রথমে বিমান করে নেদারল্যান্ডসে প্রবেশের চেষ্টা চালান। কিন্তু ইমিগ্রেশন অফিসে সেখানে যাওয়ার কোনো যৌক্তিক কারণ দেখাতে না পারায় তাকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। পরে সেখান থেকে প্রথমে ট্রেনে করে ফ্রান্সে যান, পরে বাসে করে রোটারড্যাম যান জহির। ঠিকানা অনুযায়ী তিনি ওয়াক্কাসের বাসার নিচে যান এবং তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ছুরিও কেনেন। তবে, তাকে না পেয়ে ফিরে আসেন।

আদালতকে জহির জানিয়েছেন, তিনি ঋণের জালে আটকে এই হত্যাচুক্তি করেন। হত্যা করা তার উদ্দেশ্য ছিল না।  অভিযুক্ত জহির খানের ব্যাপারে আইনজীবীরা বলেছেন, তিনি পূর্ব লন্ডনের একটি সুপারমার্টেকে শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। সত্যিই তিনি ঋণে জর্জরিত ছিলেন।

তবে সরকারি আইনজীবীরা বলছেন, ২০১৮ সালে এফবিআই যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দা সংস্থাকে জানান, আহমেদ ওয়াক্কাস গোরাইয়াকে হত্যার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। ওয়াক্কাসকে হত্যার জন্য এক লাখ পাউন্ডের চুক্তি করেন জহির। যার মধ্যে আগাম ৫০ হাজার পাউন্ড নেন তিনি। তবে, এফবিআই এর দেওয়া তথ্য ও জহিরের ওয়াটসঅ্যাপ কনভারসেশন চেক করে ব্রিটিশ পুলিশ হত্যা পরিকল্পনার কথা নিশ্চিত হয়। ফলে গ্রেপ্তার করা হয় তাকে।

২০২০ সালে জহিরকে আটক করে ব্রিটিশ পুলিশ। আগামী ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তার বিচার প্রক্রিয়া চলবে বলে জানিয়েছেন দেশটির আদালত। পাকিস্তান সরকারের বিরুদ্ধে ব্লগে লেখালেখির অপরাধে দেশ ছেড়ে নেদারল্যান্ডসে আশ্রয় নেন ওয়াক্কাস। তার দাবি, পাকিস্তানের গোয়ান্দা সংস্থা আইএসআই এই হত্যাচেষ্টার সঙ্গে সম্পৃক্ত।