advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement

করোনা সংক্রমিতদের আইসোলেশন ৫-৭ দিন করা হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৫ জানুয়ারি ২০২২ ১০:১২ পিএম | আপডেট: ২৬ জানুয়ারি ২০২২ ১২:৪১ এএম
স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। পুরোনো ছবি
advertisement

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমিতদের আইসোলেশন ১০ দিনের পরিবর্তে ৫ থেকে ৭ দিন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক। খুব শিগগির অধিদপ্তর নতুন আইসোলেশন নীতির এ ঘোষণা দেবে বলেও জানান তিনি।

আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিপিএমসিএ) আয়োজিত এক ভার্চ্যুয়াল মতবিনিময় সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন। করোনার প্রথম ও দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময় আইসোলেশন ১৪ দিন ছিল।

‘কোভিড-১৯-এর নতুন ধরন অমিক্রনের উদ্বেগজনক পরিস্থিতি মোকাবিলায় বেসরকারি হাসপাতালগুলোর প্রস্তুতি’ শিরোনামে এই মতবিনিময় সভায় রাজধানীর বেসরকারি হাসপাতাল এভারকেয়ারের পরিচালক (মেডিকেল) আরিফ মাহমুদ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেন, কোভিড আক্রান্তদের ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রে পাঁচ দিনের আইসোলেশনের নতুন নীতিমালা করা হয়েছে। কারণ এ সময়ে চিকিৎসক ও নার্সসহ হাসপাতালের জনবলও ব্যাপক হারে আক্রান্ত হওয়ায় তাদের দীর্ঘ সময় অনুপস্থিত থাকতে হচ্ছে। এতে সেবা কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। এ ছাড়া বেসরকারি হাসপাতালে র‍্যাপিড আরটি পিসিআরের অনুমতি এবং আক্রান্ত ব্যক্তিরা যেন যত্রতত্র জায়গা থেকে ওষুধ কিনে না খান, সে জন্য একটি চিকিৎসা নীতিমালা তৈরির অনুরোধ জানান তিনি।

জবাবে মন্ত্রী বলেন, আইসোলেশন নীতি নিয়ে ইতিমধ্যে সরকার আলোচনা করেছে। খুব শিগগির পাঁচ থেকে সাত দিন আইসোলেশনে থাকার ঘোষণা আসবে। এ ছাড়া সরকার নতুন চিকিৎসা নীতিমালাও তৈরি করবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, করোনা সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে প্রায় ৬৫ শতাংশের টিকা নেওয়া ছিল না। ১৭ থেকে ২৩ জানুয়ারি পর্যন্ত ৭৯ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে ৫১ জনের টিকা নেওয়া ছিল না। বাকি ২৮ জনের টিকা নেওয়া ছিল। শতাংশের হিসাবে যা ৩৫ শতাংশ। ওই ২৮ জনের মধ্যে টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন ৬ জন। আর দ্বিতীয় ডোজ সম্পন্ন করেছিলেন ২২ জন।