advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

জরুরি বিভাগ থেকে ভুয়া ডাক্তার গ্রেপ্তার

নেত্রকোনা প্রতিনিধি
১৭ মে ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৬ মে ২০২২ ১০:৩০ পিএম
advertisement

পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগ থেকে এক ভুয়া চিকিৎসককে আটক করা হয়েছে। গতকাল রবিবার রাতে পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। রাতেই মামলা দিয়ে তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তির নাম সায়েম আবদুল্লাহ ওরফে জয় (২৪)। তিনি ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার নাওপাই এলাকার মাহতাব উদ্দিনের ছেলে।

advertisement

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে রবিবার বেলা দুইটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত হাসপাতালের অন্য এক চিকিৎসকের ডিউটি ছিল। তবে তিনি জরুরি বিভাগে না বসে বাইরে

ব্যক্তিগত চেম্বারে বসে রোগী দেখছিলেন বলে অভিযোগ। তার জায়গায় সায়েম আবদুল্লাহ নামের ওই যুবককে জরুরি বিভাগে বসিয়ে রোগী দেখার দায়িত্ব দেওয়া হয়। সায়েম ময়মনসিংহের একটি প্রতিষ্ঠান থেকে চিকিৎসাসংক্রান্ত চার বছরের ডিপ্লোমা কোর্স সম্পন্ন করেছেন। করোনার শুরুর দিকে তিনি পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিন মাসের ইন্টার্ন করেন। এর পর থেকে তিনি ওই হাসপাতালে কখনো রোগী দেখছেন, আবার কখনো চিকিৎসকের সহকারী হিসেবে কাজ করছেন। রবিবার সন্ধ্যায় জরুরি বিভাগে চিকিৎসকের চেয়ারে ইউনিফর্ম পরে রোগী দেখছিলেন সায়েম আবদুল্লাহ। এ সময় স্থানীয় লোকজন ও কয়েকজন রোগীর স্বজন তাকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি নিজেকে ওই হাসপাতালের এমবিবিএস চিকিৎসক হিসেবে পরিচয় দেন। সন্দেহ হলে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। রাত আটটার দিকে পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

ওই হাসপাতালের এক কর্মচারী ও একজন ওষুধ ব্যবসায়ী জানান, সায়েম আবদুল্লাহ দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসকের পরিবর্তে জরুরি বিভাগে বসে রোগী দেখে প্রতারণা করে আসছিলেন। হাসপাতালে প্রয়োজনীয়সংখ্যক চিকিৎসক থাকলেও তারা নিয়মিত রোগী দেখেন না।

পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) আজাহারুল ইসলাম জানান, সায়েম আবদুল্লাহ হাসপাতালের কোনো চিকিৎসক বা কর্মচারী নন। তিনি চার বছরের ডিপ্লোমা শেষ করে করোনার শুরুর দিকে এই হাসপাতালে এসে তিন মাসের ইন্টার্ন করেন। এ সময় বিভিন্ন কাজে তাদের সহযোগিতা করতেন। তবে রোগী দেখার অধিকার তার নেই। রবিবার সন্ধ্যায় জরুরি বিভাগের চিকিৎসক যখন প্রয়োজনীয় কাজে পাশের কক্ষে যান, তখন সায়েম আবদুল্লাহ নিজেকে চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে চিকিৎসকের চেয়ারে বসে রোগী দেখেন। এ নিয়ে হাসপাতালের এক কর্মকর্তা বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন।

পূর্বধলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম জানান, ওই ভুয়া চিকিৎসককে গতকাল আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

advertisement