advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বিশ্বে আবারও বাড়ছে করোনা সংক্রমণ

যুক্ত হয়েছে নতুন তিন উপসর্গ

আমাদের সময় ডেস্ক
১৭ মে ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৭ মে ২০২২ ০১:১৩ এএম
advertisement

বিশ্বজুড়ে ফের বাড়ছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। চীন, হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া, ভিয়েতনামের পাশাপাশি ইউরোপের দেশগুলোতেও আক্রান্তদের সংখ্যা ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী। পরিসংখ্যান বলছে, গত ৮ থেকে ১৩ মে পর্যন্ত মাত্র ছয় দিনে বিশ্বে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছে অন্তত ৩৫ লাখ মানুষ। ওয়ার্ল্ডোমিটার্সের তথ্যানুযায়ী, গত রবিবার একদিনেই বিশ্বে আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখেরও বেশি মানুষ। যদিও মৃত্যুহার কমে এসেছে গত দুই বছরের তুলনায় অনেক গুণ। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত বিশ্বে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৫২ কোটি ১৩ লাখ ৬০ হাজারের বেশি। মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬২ লাখ ৮৮ হাজারের বেশি।

advertisement

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, চলতি বছরের শুরু থেকে টানা পাঁচ সপ্তাহ বিশ্বের অধিকাংশ দেশেই করোনা সংক্রমণের গ্রাফ ছিল নিম্নমুখী। তবে গত মার্চ থেকে আবারও আক্রান্তের সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। নতুন করে আবার করোনা সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়াকে অত্যন্ত উদ্বেগজনক বলে মনে করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। গত বৃহস্পতিবার বিশ্বের কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে একটি ভার্চুয়াল বৈঠক করেন বিভিন্ন দেশের নেতা ও প্রতিনিধিরা।

তাদের পর্যালোচনায় উঠে এসেছে, এই মুহূর্তে অন্তত ৩৬টি দেশে হু হু করে বাড়ছে কোভিডের সংক্রমণ। তবে আশার কথা হলো বিশ্বে এখন পর্যন্ত প্রায় ১ হাজার ১৭০ কোটি করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে। এর ফলে বিপুলসংখ্যক মানুষের মধ্যে করোনার সঙ্গে লড়াই করার মতো অ্যান্টিবডি তৈরি হয়ে গিয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। যার জেরে মৃত্যুহার কমছে। কিন্তু চিন্তার বিষয় হলো কোভিড আক্রান্তদের শরীরে যেসব জটিলতা ছেড়ে যাচ্ছে, তা নিয়ে ভুগতে হচ্ছে মানুষকে। আবার দরিদ্র দেশগুলোতে টিকাকরণের হার এখনো মাত্র ১৬ শতাংশ, যা কিনা গোটা পৃথিবীতেই টিকাকরণের সুফলকে ভেস্তে দিতে পারে। কারণ টিকা না নেওয়াদের থেকেই ভবিষ্যতে করোনার কোনো নতুন প্রজাতি ছড়িয়ে পড়তে পারে।

এদিকে নতুন করে সংক্রমণ বৃদ্ধির পাশাপাশি করোনার উপসর্গেও কিছু পরিবর্তন এসেছে। জ্বর, কাশি, স্বাদ ও গন্ধ চলে যাওয়া, গায়ে হাত-পায়ে ব্যথা, গলাব্যথা করোনার প্রধান উপসর্গ ছিল। আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, সম্প্রতি ভারতের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস করোনার আরও ৩টি নতুন উপসর্গের কথা বলেছে। এর মধ্যে একটি হলো- ত্বকের ক্ষত। গবেষকরা বরছেন, ত্বকে ফুসকুড়ি, চুলকানি, র‌্যাশ, লাল হয়ে যাওয়াও কোভিডের লক্ষণ হতে পারে। এ ছাড়া পায়ের আঙুলে লাল হয়ে যাওয়া, ফোসকা, ফুলে যাওয়ার মতো কোনো উপসর্গও দেখা দিতে পারে।

দ্বিতীয় নতুন উপসর্গ চুল পড়া। কোভিড থেকে সেরে ওঠার পর চুল পড়ার সমস্যায় ভুগছিলেন অনেকে। তবে বর্তমানে কোভিডের একটি অন্যতম লক্ষণ হলো চুল পড়া। তবে এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়ার কিছু নেই। কারণ চুল ঝরার পাশাপাশি যদি জ্বর, সর্দি, কাশির মতো সমস্যা শুরু হয় তাহলেই চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলতে হবে। তৃতীয় উপসর্গ হতে পারে শ্রবণশক্তি হ্রাস। ফ্লু, হাম এবং অন্যান্য সংক্রমণের মতো কোভিড সংক্রমণের পরেও শ্রবণশক্তি হ্রাস পেতে পারে। সমীক্ষায় দেখা গেছে, কোভিডে আক্রান্ত প্রায় ৩.১ শতাংশের শ্রবণশক্তি হ্রাস পেয়েছে। তবে সবার ক্ষেত্রে এমন উপসর্গ নাও দেখা দিতে পারে। ৩০ শতাংশ রোগীর ক্ষেত্রে এমন হতে পারে।

advertisement