advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

অতিরিক্ত ডাল কি স্বাস্থ্যের জন্য ভালো?

অনলাইন ডেস্ক
১৯ জুন ২০২২ ১২:৪৯ পিএম | আপডেট: ১৯ জুন ২০২২ ১২:৫৫ পিএম
পুরোনো ছবি
advertisement

উদ্ভিজ্জ প্রোটিনের ভালো উৎস হলো ডাল। এটি শরীরে প্রোটিনের চাহিদা পূরণ করে ও দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা রাখে। এ ছাড়াও ডাল নানা রকম খনিজ ও পুষ্টি উপাদান সমৃদ্ধ হওয়ায় তা শরীর সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। এ কারণে প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় আমাদের বেশির ভাগেরই প্রথম পছন্দ ডাল। এটি ছাড়া যেন আমাদের খাওয়াই হয় না। তবে অনেকেই আছেন যারা দিনে তিন বেলাই ডাল খেতে পছন্দ করেন।

কিন্তু কোনো কিছুই বেশি পরিমাণে খাওয়া শরীরের জন্য ভালো নয় বলে জানিয়েছেন পুষ্টিবিদরা। তাদের মতে, বেশি মাত্রায় ডাল ও দানাশস্য খেলে শরীরের উপর খারাপ প্রভাব পড়তে পারে। কী কী খারাপ প্রভাব পড়তে পারে তা হলো-

# পেটের সমস্যা

ডালজাতীয় শস্যে ভরপুর মাত্রায় ফাইবার থাকে। ফাইবার ডায়েটে রাখা ভালো, যা হজমশক্তি ভালো রাখতে সাহায্য করে। কিন্তু বেশি মাত্রায় ফাইবার খেলে আবার বিপদ। মাত্রাতিরিক্ত ফাইবারের কারণে পেটের গোলমাল, আমাশার মতো সমস্যা হতে পারে।

# কোষ্ঠকাঠিন্য

ডালে দ্রবণীয় ও অদ্রবণীয় ফাইবার দুই-ই থাকে। ডালজাতীয় শস্য বেশি পরিমাণে খেলে শরীরে পানির চাহিদা বেড়ে যায়। আর সেই পর্যাপ্ত পানি না পেলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা শুরু হয়।

# কিডনি স্টোনের সম্ভাবনা

অতিরিক্ত পরিমাণে মসুর ডাল খেলে কিডনির ওপর অত্যাধিক চাপ সৃষ্টি হয়, যার ফলে কিডনি স্টোনের সম্ভাবনা থাকে। এর কারণ হলো-মসুর ডালে রয়েছে উচ্চ পরিমাণে ফাইবার ও প্রোটিন থাকে, যা শরীরে অত্যাধিক প্রবেশ করলে ক্ষতি হতে পারে।

# অ্যালার্জির সমস্যা

দানাশস্য থেকে অনেকেরই অ্যালার্জির সমস্যা হয়। ডাল অল্প মাত্রায় খেলে শরীরে ততটা খারাপ প্রভাব পড়ে না। কিন্তু খুব বেশি মাত্রায় খেলেই বিপদ!

# মাইগ্রেনের সমস্যা বাড়ে

যাদের মাইগ্রেনের সমস্যা রয়েছে, তাদের ডায়েটে খুব বেশি ডাল না রাখাই ভালো। এতে মাইগ্রেনের সমস্যা আরও বেড়ে যেতে পারে।

অনেকেই মনে করেন, ডাল খেলেই শরীরে প্রোটিনের চাহিদা পূরণ হয়। বিশেষত যারা নিরামিষ খান, তারা ডালের মাধ্যমেই শরীরে প্রোটিনের চাহিদা পূরণ করেন। তবে ডালজাতীয় শস্যে সম্পূর্ণ প্রোটিন থাকে না। এতে মিথিওনাইন নামক প্রোটিন থাকে না। তাই শরীরে প্রয়োজনীয় অ্যামাইনো অ্যাসিডের চাহিদা পূরণ করতে কেবল ডালের ভরসায় থাকলে হবে না, খেতে হবে অন্য স্বাস্থ্যকর খাবারও।