advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

কোক স্টুডিওতে মিতুর ‘সব লোকে কয়’

বিনোদন প্রতিবেদক
২২ জুন ২০২২ ০১:৫৭ পিএম | আপডেট: ২২ জুন ২০২২ ০২:১১ পিএম
‘সব লোকে কয়’ গানের দৃশ্যে মিতু। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

বিশ্ব সংগীত দিবস উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার রাতে নতুন গান প্রকাশ করেছে কোক স্টুডিও বাংলা। লালন সাঁইজী ও ভারতীয় সাধক কবি কবির দাসের লেখা দুটি গানের সমন্বয়ে গানের শিরোনাম করা হয় ‘সব লোকে কয়’। এখানে ‘সব লোকে কয়’ অংশটি গেয়েছেন কানিজ খন্দকার মিতু।

তার অংশের সঙ্গে ভারতীয় ফোকের মিশ্রণে ফিউশন তৈরি করা হয়েছে। এই অংশের শিরোনাম ‘কবিরা কুয়া এক হ্যায়’। গেয়েছেন ভারতের মুর্শিদাবাদী। গানটি প্রযোজনার পাশাপাশি সংগীতায়োজন করেছেন শায়ান চৌধুরী অর্ণব।

ইউটিউবের পাশাপাশি গানটি শেয়ার করা হয় কোক স্টুডিও বাংলা’র অফিশিয়াল ফেসবুক পেজেও। এই গানটি প্রকাশের পর ইতিমধ্যেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলছে বেশ আলোচনা। অনেকেই কানিজ খন্দকার মিতুর গায়কীর প্রশংসা করেছেন।  

কানিজ খন্দকার মিতু বলেন, ‘কোক স্টুডিওর মতো এত বড় প্ল্যাটফর্মে লালন সাঁইজীর গান করতে পেরেছি এটি আমার কাছে অনেক বড় পাওয়া। এ জন্য প্রথমেই কৃতজ্ঞতা জানাই অর্ণবদার প্রতি। তিনি না থাকলে এই সুযোগটি পাওয়া হতো না। পাশাপাশি বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা জানাই আমার ওস্তাদ গোলাম রাব্বানী রতনের প্রতি। তিনি আমার পাশে ছায়ার মতো না থাকলে হয়তো এতদূর আসা সম্ভব হতো না। এ ছাড়াও আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়) সংগীত বিভাগের সকল শিক্ষকদের প্রতিও আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।’

উল্লেখ্য, মিতুর জন্ম টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর থানার গোবিন্দাসীতে। শৈশব-কৈশর কেটেছে সেখানেই। তিনি জানান, ছোটবেলা থেকেই গানের মধ্যে বেড়ে ওঠা তার। গানের হাতেখড়ি হয়েছিল স্থানীয় ওস্তাদ সেলিম পারভেজের কাছে। এরপর দীর্ঘদিন তালিম নিয়েছেন ওস্তাদ গোলাম রাব্বানী রতনের কাছে। এ ছাড়াও বিভিন্ন ওস্তাদের কাছে গানের তালিম নিয়েছেন তিনি।

মিতু স্বপ্ন দেখতেন গান নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার। তার স্বপ্ন পূরণের প্রথম ধাপটি শুরু হয় সংগীতবিষয়ক রিয়েলিটি শো ‘মেঘে ঢাকা তারা’য় অংশ নিয়ে। ২০১১ আয়োজিত এটিএন বাংলায় প্রচারিত এই আয়োজনে প্রথম স্থান অর্জন করেন তিনি।

মিতুর এই অবস্থানের পেছনে রয়েছে দীর্ঘ অধ্যবসায়। নিজের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে এইচএসসির পর পড়াশোনা শুরু করেন সংগীতের ওপর। জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সংগীত বিভাগ থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন মিতু। বর্তমানে তিনি একই বিশ্ববিদ্যালয়ে লোক বিভাগে স্নাতকোত্তরে অধ্যায়নরত।

নিজের পরিকল্পনা নিয়ে মিতু জানান, কোক স্টুডিওর গানের মাধ্যমে যে পথচলা শুরু হলো, এই যাত্রায় পাড়ি দিতে চান অসীম দূরত্ব। তার ভাষ্য, ‘জনপ্রিয় হওয়ার চেয়ে গান দিয়ে মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে নিতে চাই। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন, আমি যেন ভালো কিছু গান উপহার দিতে পারি।’