advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

রাবিতে দলীয় কর্মীকে পেটালো ছাত্রলীগ সভাপতি

রাবি প্রতিনিধি
২৫ জুন ২০২২ ১২:৪৫ এএম | আপডেট: ২৫ জুন ২০২২ ০১:৩০ এএম
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। পুরোনো ছবি
advertisement

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও তার অনুসারীদের বিরুদ্ধে এক ছাত্রলীগ কর্মীকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের টিভি রুমে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী কর্মীর নাম রুহুল আমিন। তিনি পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন বিভাগের ২০১৬-১৭ সেশনের শিক্ষার্থী ও শাখা ছাত্রলীগের কর্মী। এ ঘটনায় অভিযুক্তরা হলেন- শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের সভাপতি কাব্বিরুজ্জামান রুহুল ও তার কয়েকজন অনুসারী।

advertisement

ভুক্তভোগী কর্মীর অভিযোগ, শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সাফিউর রহমান সাফি তার মোটরসাইকেলটি চেয়ে নিয়েছিল। পরে সাফির কাছ থেকে নিয়ে বিনোদপুরের রাসেল, সারোয়ার, রূপমসহ কয়েকজন মিলে গাড়িটি ৩৩ হাজার টাকায় বন্ধক রাখে। এ বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুকে জানালে তিনি সাফি ও রাসেলকে মোটরসাইকেল ফেরত দিতে বলেন। এরপরেও অভিযুক্তরা রুহুলকে তার গাড়িটি ফেরত দেয়নি। উল্টো গতকাল ভোরে রুহুল বঙ্গবন্ধু হলে প্রবেশ করলে সবাই মিলে তাকে মারধর করে।

রুহুল বলেন, আমার মোটরসাইকেল চেয়ে নিয়ে বন্ধক রাখে গোলাম কিবরিয়া ও তার অনুসারীরা। শুক্রবার গাড়িটি ফেরত চাইলে আমাকে মারধর করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, ওই ছেলের গতিবিধি সন্দেহজনক ছিল। আমার রুমের বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে আমার বাইক নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিল। খবর পেয়ে তাকে হলের টিভি রুমে গিয়ে ধরতে সক্ষম হই। পরে আমরা তাকে হল ছাড়া করি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক আসাবুল হক বলেন, কোনো শিক্ষার্থীকে লাঞ্চিত করার অধিকার কারো নেই। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর কাছ থেকে অভিযোগ পেলে বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখব। সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। তবে শুক্রবার ভোরে বঙ্গবন্ধু হলের দ্বিতীয় তলার কয়েকটি রুমের লক আটকে দেয় রুহুল। সে আগে রাজনীতি করলেও কয়েক বছর ধরে কোনো খোঁজ ছিল না। হঠাৎ করে সে ক্যাম্পাসে এসেছে। বর্তমানে তার ছাত্রত্ব নেই। তার বাড়ি পাবনায়। তার মানসিক সমস্যা আছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। তাকে দ্রুত বাড়ি পাঠাতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জানিয়েছি।

advertisement