advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

উদ্বোধনে বিশ্বব্যাংকও আনন্দিত

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৬ জুন ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৫ জুন ২০২২ ১১:৫১ পিএম
advertisement

পদ্মা সেতু প্রকল্পে সবচেয়ে বেশি অর্থ দেওয়ার কথা ছিল যে বিশ্বব্যাংকের, সেই সংস্থাটির বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি টেম্বন বলেছেন, তারা এখন ভবিষ্যতের দিকে তাকাতে চান। অথচ পদ্মা সেতু নির্মাণের আগে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের কথা বলে এর অর্থায়ন থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল সংস্থাটি। গতকাল পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন মার্সি টেম্বন। মাওয়ার জাজিরা প্রান্তে সুধী সমাবেশের পর গণমাধ্যমকর্মীরা তাকে এই সেতু প্রকল্প নিয়ে প্রশ্ন করেন। সেতুটি নির্মাণে শেষ পর্যন্ত থাকতে না পেরে বিশ্বব্যাংক অনুতপ্ত কিনা- এমন প্রশ্নে টেম্বন সরাসরি জবাব দেননি। তিনি বলেন, বিশ্বব্যাংক পুরো বিষয়টিকে স্বীকৃতি দিচ্ছে। পদ্মা সেতু উদ্বোধন হওয়ায় বিশ্বব্যাংক আনন্দিত। এ জন্য বাংলাদেশকে বিশ্বব্যাংক অভিনন্দন জানাচ্ছে। সেতু নির্মাণ শেষ হয়েছে সেটাই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা এখানে সেটাই উদযাপন করতে এসেছি। এ সেতু নিয়ে বাংলাদেশের মানুষ খুবই গর্বিত। একই সঙ্গে আমরাও গর্বিত। সেটাই আসল কথা।

পদ্মা সেতুর অর্থনৈতিক সম্ভাবনা নিয়ে টেম্বন বলেন, এ সেতুর কারণে বাণিজ্য বাড়বে। এ ছাড়াও সেতুটি বাংলাদেশ ও দেশের জনগণের জন্য আরও অনেক সুবিধা নিয়ে আসবে, যা দারিদ্র্য দূরীকরণে সহায়তা করবে।

advertisement 3

বাংলাদেশের উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকের ভূমিকা তুলে ধরে কান্ট্রি ডিরেক্টর বলেন, বিশ্বব্যাংক ১৯৭১ সাল থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নের সহযোগী। আমরা বাংলাদেশকে সব সময় সমর্থন করে এসেছি। ২০১১ সাল থেকে বিশ্বব্যাংক ২২ বিলিয়ন ডলার সহায়তা দিয়েছে বাংলাদেশকে, তারা খুবই গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার।

advertisement 4
advertisement