advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দাগনভূঞা শিশুকে পাশবিক নির্যাতন চালিয়ে হত্যা

দাগনভূঞা (ফেনী) প্রতিনিধি
২৬ জুন ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৫ জুন ২০২২ ১১:৫২ পিএম
advertisement

দাগনভূঞায় মিফতাহুল মালিহা আপ্রা (৫) নামে প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণির এক শিশুকে অমানবিকভাবে গাছের লতার সঙ্গে ফাঁস দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুরে উপজেলার জায়লস্কর ইউনিয়নের নেয়াজপুর গ্রামের নেয়াজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পেছন থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। অপ্রা একই এলাকার বক্সআলী ভূঞা বাড়ির ওসমান গনির মেয়ে ও নেয়াজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক-প্রাথমিকের শিক্ষার্থী। দাগনভূঞা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হাসান ইমাম বলেন, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে ঘটনার মূল কারণ জানা যাবে। তবুও ঘটনার ক্লু উদঘাটনে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে।

সোনাগাজী ও দাগনভূঞা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মাশকুর রহমান বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, শিশুটিকে পাশবিক নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে। ডাক্তারি পরীক্ষার পর বিস্তারিত জানা সম্ভব হবে।

advertisement 3

পুলিশ, স্থানীয় ও নিহত শিশুর ফুফু তোহুরা আক্তার বিউটি জানান, বাড়ির পাশেই নেয়াজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে ক্লাসের ফাঁকে পানি খাওয়ার জন্য বেরিয়ে নিখোঁজ হয় আপ্রা। পরে অনেক খোঁজাখুঁজির পর বিদ্যায়লের পেছনে কবরস্থানের ঝোঁপের মধ্যে গাছের সঙ্গে তার লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। খবর পেয়ে পুলিশ, র‌্যাব, সিআইডিসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক দল ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

advertisement 4

নিহত শিশুর মা আমুতুর রাহিম কান্নাকণ্ঠে জানান, প্রতিদিনের মতো অপ্রা সকাল ৯টায় স্কুলে যায়। স্কুল ছুটির পরেও বাসায় না ফিরলে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেন, পরে মসজিদের মাইকে ঘোষণা করেন। তিনি আপ্রা হত্যার বিচার চান।

এদিকে শিশু অপ্রাকে হত্যার ঘটনায় এলাকায় শোকের মাতম চলছে। স্থানীয়রা ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

advertisement