advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

১৩ ওভার পর বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত প্রথম টি-টোয়েন্টি

স্পোর্টস ডেস্ক
৩ জুলাই ২০২২ ০৩:৫২ এএম | আপডেট: ৩ জুলাই ২০২২ ১১:৩৭ এএম
ছবি: সংগৃহীত
advertisement

ভেজা মাঠ ও দু’দফা বৃষ্টির কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি পরিত্যক্ত হয়েছে। ম্যাচে বাংলাদেশ প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ১৩ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১০৫ রান করলে বৃষ্টি ফের নামে। এরপর বৃষ্টি থামলেও নিয়ম অনুযায়ী টি-টোয়েন্টিতে প্রতিপক্ষ ৫ ওভার খেলতে হবে, তবে সেটির জন্য পর্যাপ্ত সময় ছিল না বলে মনে করেন আম্পায়াররা। সেইসঙ্গে মাঠে কৃত্রিম আলোরও ব্যবস্থা নেই।

শনিবার মাঠ ভেজা থাকায় ১ ঘণ্টা ৪৫ মিনিট পর গড়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি। প্রথমে ১৬ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিং পায় বাংলাদেশ।

advertisement

বাংলাদেশ সময় রাত ১১ টায় টস হওয়ার কথা ছিল। আর দুদলের মাঠে নামার কথা ছিল সাড়ে ১১টায়। তবে মাঠের নানা আংশ পুরোপুরি প্রস্তুত ছিল না।

ডমিনিকায় দীর্ঘ পাঁচ বছর পর প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক ম‍্যাচ মাঠে গড়িয়েছিল। যেখানে আট বছর পর হয়েছিল প্রথম আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি। তবে শেষ আর হলো না।

বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে দ্রুতই বিদায় নেন ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার। আকিল হোসেনের বলে তিনি ব্যক্তিগত ২ রানে তিনি উইকেটরক্ষক ডেভন টমাসকে ক্যাচ দেন। এরপর দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে সাকিব আল হাসানের সঙ্গে ৩৪ রানের পার্টনারশিপ গড়েন এনামুল হক বিজয়। সাড়ে ৬ বছর পর জাতীয় দলের হয়ে টি-টোয়েন্টিতে খেলতে নামা বিজয় ১০ বলে ১৬ করে ওবেদ ম্যাককয়ের বলে এলবি হন।

বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি লিটন দাস। সপ্তম ওভারে রোমারিও শেফার্ডের বলে তিনি তুলে মারতে গিয়ে ব্যক্তিগত ৯ রানে ফেরেন। পরের ওভারেই বিদায় নেন ঝড়ো ব্যাট করা সাকিব। তিনি হেইডেন ওয়ালশের বলে চার্জ করতে গেলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন। ১৫ বলে ২টি চার ও সমান ছক্কায় ২৯ করেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। এক বল পরেই বৃষ্টি আসে।

এবার খেলা মাঠে ফিরলে ১৪ ওভারে খেলার নির্দেশনা দেন আম্পায়াররা। এরপর আরও একবার বৃষ্টি বাধা দিলে আরও এক ওভার খেলা হয়েই মাঠ ছাড়ে দুদল। নুরুল হাসান সোহান ১৬ বলে ২৫ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন। তিনি ওডেন স্মিথের বলে আউট হওয়ার আগে একটি চার ও ২টি ছক্কা হাঁকান। দলের হয়ে আর কেউই তেমন কিছু করতে পারেননি।

ক্যারিবীয় বোলারদের মধ্যে শেফার্ড সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট পান। ওয়ালশ পান দুটি উইকেট। এছাড়া একটি করে উইকেট তুলে নেন আকিল ম্যাককয় ও স্মিথ।

আগামীকাল একই ভেন্যুতে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি রয়েছে।

advertisement